শনিবার সকাল থেকেই বাড়তি ট্রেন চালানো শুরু করবে মেট্রোরেল। টালা সেতু ভাঙার  জেরে বিটি রোড থেকে কলকাতার দিকে ও কলকাতা থেকে বিটি রোডের দিকে যাওয়া যানবাহনের পথ অনেকটাই বদলেছে। ব্যস্ত সময়ে যানজটে নাকাল হচ্ছেন অফিসযাত্রীরা। যার দরুণ ঘুরপথে যাতায়াতে চরম ভোগান্তির শিকার  স্কুলপড়ুয়ারাও। রাজ্যের তরফে তাই বাড়তি ট্রেন চালাতে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে আবেদন জানানো হয়েছিল। রাজ্যের আবেদনে সাড়া দিয়ে শনিবার থেকেই নোয়াপাড়া থেকে অতিরিক্ত ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেট্রোরেল।

আরও পড়ুন, জমির কাগজ এল রাজ্য সরকারের উদ্য়োগে, স্বস্তিতে টালিগঞ্জের ৪৪ পরিবার


মেট্রোরেল সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার সকাল থেকেই বাড়তি ট্রেন চালানো শুরু করবে মেট্রোরেল। শনি, রবি ও ছুটির দিন বাদ দিয়ে নোয়াপাড়া থেকে আপ ও ডাউন মিলিয়ে দিনভর চলবে ১৩৩টি ট্রেন। এখন নোয়াপাড়া থেকে প্রতিদিন ১২১টি ট্রেন চলাচল করে। টালা সেতু ভাঙার জেরে রাজ্যের আবেদনে সাড়া দিয়ে ১২টি অতিরিক্ত ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেট্রোরেল।আরও জানা গিয়েছে, নোয়াপাড়া থেকে কবি সুভাষের প্রথম ট্রেন ছাড়বে সকাল ৭টা ৬ মিনিটের পরিবর্তে ৬টা ৫৪ মিনিটে। রবিবার ও ছুটির দিনে ছাড়বে সকাল ৯টা ১১ মিনিটে। শনিবার ৬টা ৫৪ মিনিটে ছাড়বে প্রথম মেট্রো।

আরও পড়ুন, প্রতিবাদের মূলই অস্ত্রই কাগজ-কলম-বই, কলকাতা বইমেলাতে সিএএ নিয়ে সরব স্বরা


 সূত্রের খবর,  টালা সেতু ভাঙার কাজ চলার জেরে উত্তর কলকাতার একটি অংশে যানবাহন চলাচলের রুট বদলেছে। বরাহনগর, উত্তর দমদম, সিঁথি, ডানলপ, বেলঘড়িয়ার বাসিন্দাদের দৈনন্দিন কাজে বেরিয়ে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। বিপজ্জনক দশার জন্য ভেঙে ফেলা হচ্ছে টালা সেতু। সেতু ভাঙার কাজ চলার জেরে ঘুরপথে চালানো হচ্ছে সব রকমের যানবাহন। বিটি রোড থেকে কলকাতায় ঘুরপথে যাতায়াতের জন্য হয়রানির মুখে পড়তে হচ্ছে নিত্যযাত্রী থেকে আমজনতাকে। আর সেই দুর্ভোগ কমাতেই রাজ্য সরকারের তরফে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়েছিল। নোয়াপাড়া থেকে বাড়তি ট্রেন চালানোর আবেদন জানায় রাজ্য সরকার। রাজ্যের আবেদনে সাড়া দিয়েছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।