মাদার ডেয়ারির নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। 'বাংলার ডেয়ারি' নামেই এবার ঘরে ঘরে পৌঁছবে এই ব্যান্ডের দুই। এমনটাই জানা যাচ্ছে রাজ্য সরকারের তরফে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইচ্ছামুসারেই হচ্ছে এই নাম বদল। 

ন্যাশনাল ডেয়ারি ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (এনডিডিবি) হাত থেকে রাজ্যের নিয়ন্ত্রণে আসার পরেও নাম বদল হয়নি মাদার ডেয়ারির। কিন্তু এবার নাম বদলের পথেই হাঁটছে রাজ্য সরকার। পাশাপাশি সংস্থার ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রণেও বড়সড় বদল আনা হচ্ছে।

নবান্ন সূত্রে খবর, মাদার ডেয়ারিকে বাংলার ডেয়ারির সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মেনে মুখ্যসচিব রাজীব সিংহ ইতিমধ্যেই প্রাণিসম্পদ দফতরকে প্রস্তুতি চালাতে বলেছেন। সরকারি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গিয়ে স্বাধীন ভাবে কাজ করার জন্য বাংলার ডেয়ারি লিমিটেড নামে একটি সংস্থা গড়া হয়েছে। সেই সংস্থা চলবে কোম্পানি আইন মেনে। 

এদিকে এক দিকে দুধের সংগ্রহ কমে যাওয়া ও অন্যদিকে স্কিমড মিল্ক বা গুঁড়ো দুধের দাম দ্বিগুণ হয়ে যাওয়ায় কাহিল দশা মাদার ডেয়ারির। ফলে গত বছর ডেসম্বরে থেকে প্রতি মাসে গড়ে তিন কোটি টাকা লোকসানে চলছে মাদার  ডেয়ারি। এর অবস্থায় দুধ উৎপাদনে সহায়ক মূল্য বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। প্রতি লিটার ২৮ টাকা থেকে বেড়ে দুধের নতুন দাম হচ্ছে ৩১ টাকা। এর ফলে প্রতিদিন দুধ সংগ্রহ করতে সরকারের  ১০ লক্ষ টাকা খরচ হবে। 

এনডিডিবি কয়েক বছর চালানোর পরে রাজ্যের হাতে মাদার ডেয়ারিকে তুলে দিয়েছিল। তখন থেকেই প্রাণিসম্পদ বিকাশ দফতরের তৈরি করে দেওয়া পরিচালন কমিটি মাদার ডেয়ারি পরিচালনা করে। তার মাথায় আছেন প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। কিন্তু গত আট বছরে ঘুরে দাঁড়ানোর বদলে এই ডেয়ারি প্রতি বছর প্রতিকূল পরিস্থিতিতে পড়েছে। 

প্রাণিসম্পদ বিকাশ দফতরের খবর, বাংলার ডেয়ারি লিমিটেড নামক সংস্থাটি তৈরি হয়ে গিয়েছে। বোর্ডে সরকারি কর্তাদের পাশাপাশি স্থানীয় দু’জন শিল্পপতিরও থাকার কথা। সংস্থার কাজ শুরুর জন্য ১০ কোটি টাকা দিয়েছে রাজ্য সরকার।