ভুয়ো প্রতিশ্রুতি মামলায় আদালতে আপাত স্বস্তি পেলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুকুল রায়কে গ্রেফতার করতে পারবে না সরশুনা থানার পুলিশ। এমনই নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

আপাত স্বস্তি পেলেও চিন্তা কমল না। শুক্রবার বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছে,জেরার জন্য মুকুলকে ডাকতে হলেও ৭২ ঘণ্টা আগে জানাতে হবে। 
মামলার পরবর্তী শুনানি রয়েছে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর। নোটিশ গ্রহণের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মুকুলকে হাজির হতে হবে আইও'র সামনে। 

রেলের কমিটিতে সদস্যপদ পাইয়ে দেওয়ার ভুয়ো প্রতিশ্রুতির মামলায় মুকুল ঘনিষ্ঠ বাবান ঘোষ আগেই গ্রেফতার হয়েছিল। বাবান রাজ্য বিজেপির শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি। সেই মামলায় এফআইআরে নাম রয়েছে মুকুলেরও। গ্রেফতারি এড়াতে মুকুল হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন জানান। তার পরিপ্রক্ষিতেই এই মন্তব্য় করেছে ডিভিশন বেঞ্চ। 

জোনাল রেলওয়ে ইউজার কনসালটেটিভ কমিটির সদস্যপদ পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মুকুল ঘনিষ্ঠ বিজেপির শ্রমিক সংগঠনের রাজ্য সভাপতি বাবান ঘোষের বিরুদ্ধে। অভিযোগ,  ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর থেকে পরের বছর মে মাস পর্যন্ত  সন্তু গঙ্গোপাধ্যায় নামে এক ব্যবসায়ীর থেকে ধাপে ধাপে ৭০ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন বাবান। পরে প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে সরশুনা থানায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে মুকুল রায়, বাবান ঘোষ, সাদ্দাম আনসারি সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণা সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেন তিনি। ইতিমধ্যেই পুলিশ বাবানকে গ্রেফতার করেছে। বাবানের গ্রেফতারের পরই আইনি রক্ষাকবচ চাইতে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন মুকুল। আগাম জামিনের আর্জি জানান তিনি বিচারপতি শহিদুল্লা মুন্সির ডিভিশন বেঞ্চে।