টিএমটি বার, আয়রন রড এবং ওয়ার রড-এর বাজারে এবার পা রাখতে চলেছে বেদান্ত। বুধবার কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেলে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই কথা ঘোষণা করল ইস্পাতশিল্পের এই অগ্রণী সংস্থা। এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে সংস্থার ডেপুটি সিইও পঙ্কজ মলহান জানান, তাঁদের অধীনস্থ সংস্থা ইলেকট্রো স্টিলের পক্ষ থেকে এই তিনটি পণ্য-কে বাজারে আনা হচ্ছে। ভবিষ্যতে দেশের জিডিপি-র কথা মাথায় রেখেই এই পদক্ষেপ তারা নিয়েছেন। তিনি আরও জানান যে, এক সমীক্ষার মাধ্যমে দেখা গিয়েছে আগামী দশ বছরে জিডিপি-র হার দ্বিগুণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ফলতই এর প্রভাব পড়বে উৎপাদন শিল্পে। ফলে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলির সামনে বাণিজ্য বৃদ্ধির সুযোগও থাকছে। তাই কাঁচামালের চাহিদাও ক্রমশ বৃদ্ধি পাবে বাজারে। সেই জন্যই উন্নত মানের কাঁচা মাল তৈরি করতে টিএমটি বার, আয়রন রড এবং ওয়ার রড-এর বাজারকে এখন পাখির চোখ করতে চাইছে বেদান্ত।

এই পণ্যগুলিকে বাজারে আনার ক্ষেত্রে এক বৃহৎ কর্মসংস্থানের সুযোগও তৈরি হবে বলে দাবি বেদান্তের। এতে আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে এর সুফলগুলো পরিলক্ষিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে। অতিতে বেদান্তের বিরুদ্ধে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়ে বহু বিতর্কও তৈরি হয়েছিল। সেই কারণে বেদান্ত উৎপাদন শিল্পে আরও বৃহত্তর পদক্ষেপের সঙ্গে সঙ্গে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষাতেও নজর দিতে চাইছে। যার জন্য বিশেষ কিছু ব্যবস্থাও তারা নিচ্ছে বলে দাবি করেছেন সংস্থার ডেপুটি সিইও পঙ্কজ মলহান। তাঁর মতে, পরিবেশকে বাঁচিয়ে সাস্টেনেবল ডেভলপমেন্টেই সংস্থার নজর। 

বেদান্ত ইতিমধ্যে সারা বিশ্বে গ্যাস ও তেল প্রস্তুতকারীদের মধ্যে নিজের নাম প্রথম সারিতে তুলে আনতে সক্ষম হয়েছে। এবার তাদের এই নতুন পদক্ষেপে উৎপাদনের পরিমাণ বেড়ে হতে চলেছে দ্বিগুণ। বর্তমানে তারা ১.৫ মিলিয়ন টন প্রতি বছর কাঁচা মাল প্রস্তুত ও সরবরাহ করে থাকে।  এবার তা বেড়ে হতে চলেছে ৩ মিলিয়ন টন। নতুন এই পরিকল্পনায় বিনিয়োগ করা হচ্ছে ৪-৫ হাজার কোটি টাকা।