এ রাজ্যে তাঁকে তৃণমূলের অন্যতম কঠোর সমালোচক বলেই পরিচিত ছিলেন তিনি। এ হেন ওমপ্রকাশ মিশ্রও এবার কংগ্রেস ছেড়ে নাম লেখালেন তৃণমূল কংগ্রেসে। বুধবার বিধানসভায় গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে শাসক দলে যোগ দিলেন এই কংগ্রেস নেতা। যদিও, ওমপ্রকাশের দলবদলকে গুরুত্ব দিতে নারাজ প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব। 

দলবদলের বাজারে যখন বিজেপি-তে নাম লেখানোরই ঝোঁক বেশি, তখন তৃণমূলে কেন গেলেন ওমপ্রকাশ? প্রাক্তন কংগ্রেস নেতার দাবি, ইতিমধ্যেই পুরনো দলের সমস্ত পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন তিনি। কিন্তু যে নীতি এবং আদর্শ নিয়ে এতদিন কংগ্রেস করেছেন, সেই আদর্শ নিয়েই এবার তৃণমূলে কাজ করতে চান তিনি।

ওমপ্রকাশ বলেন, 'বিজেপি-র উত্থান আটকাতে কংগ্রেস এবং বামপন্থী দলগুলি কি করছে? তার থেকে বরং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত শক্তিশালী করলে বিজেপি-কে রোখা যেত। শুধুমাত্র ঈর্ষার কারণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন করা যাবে না, এই রাজনীতির সঙ্গে আমি সহমত নই। আজকে দেশের সাংবিধানিক ব্যবস্থা এবং ধর্মনিরপেক্ষতা বাঁচিয়ে রাখতে গেলে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজনৈতিক অবস্থানকে আমি দীর্ঘদিন ধরেই সমর্থন করে আসছি। সেই কারণেই তৃণমূলে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলাম।' ওমপ্রকাশ নিজেই জানিয়েছেন, তাঁকে বেশ কিছু দায়িত্ব দেওয়ার কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

যদিও, ওমপ্রকাশ মিশ্রের দল বদলকে গুরুত্ব দিতে নারাজ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। তিনি বলেন, 'উনি একমাস আগে পদত্যাগ করেছেন। ওমপ্রকাশ মিশ্র এমন কিছু বড় মাপের নেতা নন যে তিনি দল ছাড়লে কংগ্রেসের বিশেষ কোনও ক্ষতি হবে। লোকসভা নির্বাচনের পরে হঠাৎ ওনার মনে হয়েছে তৃণমূলের সঙ্গে থাকলে সুবিধে হবে। এটাকে আমরা খুব একটা গুরুত্ব দিচ্ছি না।'