রাজ্য়ে আমফান পরবর্তী সময়ে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু দক্ষিণ ২৪ পরগণায়। পরিস্থিতি এমনই হয়েছে যে কাকদ্বীপে নিজের কেন্দ্রে  প্রশাসনিক বৈঠকে যেতে পারলেন না  ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। প্রবল বিক্ষোভের মুখে গাাড়ি ঘুরিয়ে ঘরে ফিরতে হল তাকে। 

রাজ্য়ে ঘূর্ণিঝড় আমফানের চারদিন কেটে গিয়েছে। এখনও উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণায় বহু জায়গায় বিদ্যুৎ আসেনি। জলের অভাবে রাস্তায় নেমেছেন আবাসনের বাসিন্দারা। পরিস্থিতি এমনই জায়গায় পৌঁছেছে যে জন প্রতিনিধিদেরও রেয়াত করছেন না স্থানীয়রা। একে একে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বহু জায়গায় বিক্ষোভে রাস্তায় নেমেছে।  সেই অবরোধের মধ্যে মাঝ পথ থেকেই ফিরতে হল ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। 

এদিন কাকদ্বীপে আমফানের ক্ষয়ক্ষতি দেখতে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। সাংসদ অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে কাকদ্বীপে প্রশাসনিক বৈঠক করার কথা ছিল তার। কিন্তু দেখা গেল বিক্ষোভের জেরে বৈঠকে উপস্থিত হতেই পারলেন না তৃণমূলের সাংসদ। সেখানে জেলার জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনিকদের আধিকারিকদের উপস্থিত থাকার কথা ছিল। 

এদিন জল-বিদ্যুতের হাহাকারে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ঠাকুরপুকুর, বেহালা সহ একাধিক এলাকা।  সেই বিক্ষোভেই আটকে পড়েন অভিষেক। বার বার পুলিশের তরফে আবেদন জানিয়েও লাভ হয়নি।  প্রায় ঘন্টাখানেক এভাবে চলার পর মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে মাঝপথেই ফিরতে হয় সাংসদকে। এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনিক বৈঠকে  বলেন, রাস্তা অবরোধে অভিষেক আটকে পড়েছে।  আমিই ওকে ফিরে যেতে বলেছি। সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে বলছি শান্ত থাকুন। বিক্ষোভ দেখালে আরও কাজ করতে সমস্যা হবে।