ফেলে দেওয়া শাড়ি, বেডকভার দিয়ে তৈরি হচ্ছে সুন্দর ক্যারি ব্যাগ। প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগ রুখতে জুটের ব্যাগ তৈরি হচ্ছে বটে, কিন্তু তাতে তেমন বাজার নেই। দর বেশি হওয়ায় এবার ফেলে দেওয়া শাড়ি, কাপড় দিয়ে তৈরি হচ্ছে নতুন ব্যাগ।

বারবার বলা হচ্ছে আর প্লাস্টিক ব্যাগ নয়। কিন্তু প্লাস্টিক ব্যাগের বিকল্প গড়ে না ওঠায় সাফল্যের খতিয়ানে তেমন সাড়া মিলছে না। তবে ক্যারি ব্যাগের দাপট রুখতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে  বিভিন্ন পুরসভা । প্লাস্টিক ব্যাগের বিকল্প হিসাবে একটি উদ্যোগ নিয়েছে আলিপুর শান্তি সংঘ। ফেলে দেওযা কাপড় দিয়েই তারা তৈরি করছে ব্যাগ।

সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে ,আসলে মানুষের অভ্যাসটাই বদলে গেছে। তাই দোকানে কোনও জিনিস কিনলেই  প্লাস্টিক ক্যারিব্যাগের কথা মাথায় আসে। আর এখানেও সেই ডিমান্ড এ্যান্ড সাপ্লাইয়ের গল্প। ক্যারিব্যাগ রুখতে বাজারে জুটের ব্যাগ রয়েছে। কিন্তু তার দাম কিছুটা বেশি। স্বাভাবিক ভাবেই ফের সেই লুকিয়ে হলেও চলছে প্ল্যাস্টিকের ক্যারি ব্যাগ। সেই দূষণ থেকেই মুক্তি দিতে বাজারে এসেছে এই নতুন পরিকল্পনা। 

খোদ মেয়র ফিরহাদ হাকিম এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন, নিজেই বাজারে বেরিয়ে বিলিয়েছেন এই কাপড়ের ব্যাগ। জানা গেছে, পুরসভার তরফ থেকে বিনামূল্য়ে কিছু জায়গায় বিলি হলেও বাজারেও পাওয়া যাবে এই ব্যাগ। মূল্য রাখা হয়েছে মাত্র পাঁচ টাকা। মেয়র জানিয়েছেন, মহানগরকে প্লাস্টিক মুক্ত করতে উদ্যোগ নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। 

আগেও বহু বাজারে অভিযান চালিয়ে প্লাস্টিকের ব্যাগ ফেলে দেওয়া হয়েছে। পরিবর্তে পরিবেশ বান্ধব ব্যাগ দিয়েছে কলকাতা পুরসভা। কিন্তু বাস্তবে দেখা গিয়েছে, সেই ব্যাগ  দেওয়া সত্ত্বেও অনেক বাজারেই  তার ব্যবহার হচ্ছে না। তাই নতুন উদ্যোগে মানুষকে সচেতন করতে ফের ময়দানে নেমেছে পুরসভা। এবার তাদের হাতিয়ার কাপড়ের ব্যাগ।  জানা গেছে, বাড়ির ফেলে দেওয়া শাড়ি, বেডকভার দিয়ে আলিপুর শান্তি সংঘের ব্যবস্থাপনায় ব্য়াগ তৈরি হচ্ছে। শক্তি প্রকল্পে  স্বনির্ভর গোষ্ঠীর  মহিলারা তৈরি করছেন বেশ সুন্দর ডিজাইনের কাপড়ের ক্যারি ব্যাগ। দেখতে সুন্দর দামেও সস্তা।