সল্টলেকে ভুয়ো কলসেন্টার খুলে বিদেশিদের প্রতারণাচক্রের পর্দাফাঁস। পুলিশের জালে ভিনরাজ্যের পাঁচ যুবক। ধৃতদের মোবাইল ফোন ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বাজেয়াপ্ত করেছেন তদন্তকারীরা।

সল্টেলেকের সেক্টর ফাইভে কলসেন্টারের সংখ্যা কম নয়। বিভিন্ন বহুজাতিক সংস্থা গ্রাহকদের পরিষেবা দেয়। আবার অনেক বিদেশি সংস্থার সঙ্গে কলসেন্টার মারফৎ ভারতীয় সংস্থার ব্যবসা চলে।  তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, সল্টলেকের সেক্টর ফাইভে ভুয়ো কলসেন্টার খুলে প্রতারণা কারবার চালাচ্ছিল  তৌহিদ ওয়াহিদ খান নাম যুবক। মুম্বইয়ে বাসিন্দা সে। ওই ভুয়ো কলসেন্টার থেকে  ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রোটোকল ব্যবহার করে বিদেশি নাগরিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হত।  নিজেদের দেশে আয়কর দেওয়ার নামে গ্রাহকদের নির্দিষ্ট কয়েকটি অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করতে বলতেন কলসেন্টারের কর্মীরা। এভাবে ১০ লক্ষ ডলারের থেকেও বেশি টাকা আদায় করা হয়েছিল।  কিন্তু শেষরক্ষা হল না। গোপন সূ্ত্রে এই ভুয়ো কলসেন্টারের খবর পান বিধাননগর কমিশনারেটের সাইবার ক্রাইম সেলের পুলিশ আধিকারিকরা।  তদন্তে নেমে কলকাতার শেক্সপিয়ার সরণী থানা এলাকা থেকে প্রতারণাচক্রের মূল পাণ্ডা তৌহিদ ওয়াহিদ খান ও প্যাটেল রিচেস নামে দু'জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও তিন অভিযুক্তের সন্ধান মেলে। ওই তিনজনকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।  তাদের কাছ থেকে বিদেশি গ্রাহকের গোপন তথ্য, মোবাইল নম্বর পেয়েছেন তদন্তকারী। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক অ্য়াকাউন্টও।