জমা জল থেকে ডেঙ্গু হওয়ার কথা সবারই জানা। আবর্জনা থেকেও জন্মাতে পারে ডেঙ্গুর মশা। এবার জানা গেল, বাইক থেকেও কলকাতায় জন্মাচ্ছে ডেঙ্গুর লার্ভা। কীভাবে জানলে অবাক হবেন আপনিও।

ডেঙ্গু নিধনে মানুষ কাজে লাগিয়েও কাজ হচ্ছে না। বাধ্য় হয়ে কদিন আগেই ড্রোনের সাহায্য় নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। নিজেই সেই ড্রোনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন কলকাতা পুরসভার ডেপুটি মেয়র অতীন  ঘোষ। তিনি জানান, যেসব এলাকায় মানুষ পৌঁছতে পারছে না, সেখানে পৌঁছে যাবে মশা মারার ড্রোন। পুরসভার তরফে এই ড্রোনের নামকরণও হয়ে গেছে। মশা নিধনের এই যন্ত্রকে বিনাশ নাম দিয়েছে পুরসভা। 

মেয়র পারিষদ স্বাস্থ্য় জানিয়েছেন, প্রায় ২০০ ফুট উড়তে পারে এই ড্রোন। পরিত্যক্ত জমি, বাড়িতে মশার লার্ভার ছবি তুলে আনবে এই ড্রোন। পরে সেই জায়গায় গিয়ে কীটনাশক ছেটানোর কাজও করবে এই অত্যাধুনিক যন্ত্র। ডেপুটি মেয়র যখন এই কাজ করছেন, তখন বাইক থেকেই ডেঙ্গুর আশঙ্কা করছেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। মেয়রের আশঙ্কা, পুলিশের ধরা বেআইনি বাইকের গাদা থেকেই জন্ম নিতে পারে ডেঙ্গুর লার্ভা। 

প্রশ্ন উঠেছে ,কীভাবে বাইকের গাদা থেকে জন্ম নিচ্ছে ডেঙ্গুর মশা। সূত্রের খবর, কলকাতার বেশকিছু পুলিশ স্টেশনের বাইরে টারপুলিন দিয়ে ঢাকা রয়েছে বেআইনি বাইক। দীর্ঘদিন এই বাইকগুলির কোনও ব্য়বস্থা না করায় বাইকের গাদার ওপর প্লাস্টিকে জল জমে। এই জল নিয়মিত পরিষ্কার না হওয়ায় এখান থেকেই জন্ম নিচ্ছে ডেঙ্গুর মশা। তবে শুধু বাইকই নয়, মেয়রের আশঙ্কা বাড়িয়েছে পুলিশের আটক করা বেশ কিছু গাড়ি। দীর্ঘদিন ভবানীপুর পুলিশ স্টেশনের সামনে এই গাড়ির ঢের পড়ে রয়েছে। পরিষ্কার না করায় ধুলো-বালির সঙ্গে গাড়ির মধ্য়েই জল পাওয়া গিয়েছে। সেই জমা জল থেকেই ডেঙ্গুর আশঙ্কা করছে পুরসভা। 

কলকাতার জোড়াসাঁকো, ভাবনীপুর, এন্টালি থানার সামনে এই গাড়ি ও বাইকের সারি সবারই চোখে পড়ে। পুলিশের উদ্ধার করা এই গাড়িগুলিই এখন পুরসভার মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইতিমধ্যেই দ্রুত এই গাড়িগুলিকে স্ক্র্য়াপ মেশিনে পাঠাতে কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মার কাছে আবেদন জানাবেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। অবিলম্বে গাড়ি বা বাইকগুলি বিক্রি বা পেষাই করে জায়গা পরিষ্কার রাখার কথা বলেছেন তিনি।

কলকাতায় ডেঙ্গু আক্রান্তের সাম্প্রতিক পরিসংখ্য়ান বলছে, কদিন আগেও লেকটাউন থানার বেশকিছু পুলিশ কর্মী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন। পরে বিধাননগর পুরসভার সাফাই অভিযানে লেকটাউন থানার পরিত্যক্ত গাড়ির টায়ারে মেলে ডেঙ্গুর লার্ভা। এই নিয়ে দ্রুত ব্যবস্তা নিতে বলা হয় লেকটাউন থানাকে।