অর্থনীতি যে নোবেল জয়ীদের তালিকা রয়েছে তাতে অমর্ত্য সেনের পর আরও এক বাঙালির স্থান হল। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দোপাধ্যায় জিতে নিয়েছেন অর্থনীতিতে নোবেল। তাঁর সঙ্গেই নোবেল পেয়েছেন তাঁর স্ত্রী এস্থের ডাফলো। এখন পর্যন্ত যা খবর তাতে ২২ তারিখ রাতেই কলকাতায় পা রাখবেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে ১৯ তারিখে দিল্লিতে তাঁর একটি বই প্রকাশ অনুষ্ঠান রয়েছে।বাঙালি সন্তান নোবেল জয়ের পর  ফিরছেন দেশে। ২৩ অক্টোবর কলকাতায় পাওয়া যাবে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়-কে। যদিও, দেশে তিনি পা রাখতে চলেছে শুক্রবার রাতের মধ্যেই। তবে তাঁর সঙ্গে স্ত্রী এস্থের এই যাত্রায় স্বামীর দেশে আসছেন না। 

 ২৩ অক্টোবর বুধবার কলকাতার বালিগঞ্জের বাড়িতে কাটানোর কথা অভিজিৎ-এর। ইতিমধ্যেই সরকার থেকেও নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে সম্বর্ধনা দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। এছাড়া প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফেও তাঁকে সম্বর্ধনা জানানো হবে। অভিজিৎ প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ছিলেন। এছাড়া তিনি প্রেসিডেন্সির মেন্টর পদে নিযুক্ত রয়েছেন। বর্তমানে অ্যালমা ম্যাটার পদে নিযুক্ত রয়েছেন। নোবেল জেতার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাকি শিক্ষক-শিক্ষিকারা তাঁর মায়ের সঙ্গে দেখা করেন। তাঁরা অভিজিৎ-এর মা নির্মলা বন্দোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানিয়েছেন। কলকাতায় আসার পর অভিজিৎ-কে সম্বর্ধনা জানানোর জন্য তৈরি প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়।

ইতিমধ্যেই প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে বেসরকারী ভাবে আমন্ত্রন জানিয়েছে। যেহেতু নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ মাত্র একদিনের জন্য কলকাতায় আসছেন, তাই তাঁর পক্ষে কতটা সময় দেওয়া সম্ভব হবে সেই ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্ম-কর্তারা। তবে অভিজিৎ-এর সঙ্গে প্রেসিডেন্সির যোগসূত্র যেহেতু গভীর এবং তিনি মাঝে-মধ্যেই প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়-এর অনুষ্ঠানে যোগদান করেছেন। তাই পুরনো বিশ্ববিদ্যালয়-এর ডাকে সাড়া দেবেন বলে মনে করছে প্রেসিডেন্সি। এছাড়া ছাত্র-ছাত্রীরাও তাঁকে দেখার জন্য উদগ্রীব হয়ে রয়েছেন।

 এখন সম্ভব না হলে পরে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে সম্মান জানাতে পারেন। অ্যালুমনি অ্যাসোশিয়েশনের প্রেসিডেন্ট বিভাস চৌধুরী জানান 'আশা করছি পরের বছরের ফ্রেবুয়ারী মাসে তিনি আবার কলকাতায় আসবেন, তখন তাঁকে সম্বর্ধনা জানানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে'। এই মুর্হুতে কলকাতায় আসবেন যখন তখন তিনি ব্যস্ততায় থাকবেন, তাই তাঁর ওপর আলাদা করে কোনও চাপ সৃষ্টি করা হবে না।