কোন সুখবর কি আসছে? জল্পনা ছিলই।  শেষপর্যন্ত রাজ্যের অধ্যাপকদের দীর্ঘদিনের দাবি মিটল। এ রাজ্যের ইউজিসি-র নতুন বেতন কাঠামো কার্যকর করার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা, আগামী বছরের জানুয়ারি মাস থেকে ইউজিসি-এর বেতন কাঠামো অনুযায়ী বেতন পাবেন এ রাজ্যে সরকারি কলেজের অধ্যাপক-অধ্যাপিকাও। শুধু তাই নয়, আগামী চার বছরে ৩ শতাংশ বর্ধিত হারে বেতন দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।  আগামী বছর থেকে সেই বকেয়া টাকাও পাবেন অধ্য়াপকরা। তবে এরিয়া মিলবে না।

এ রাজ্যের ইউজিসি-র বেতন কাঠামো মেনে বেতন দিতে হবে। রাজ্যের অধ্যাপকদের এই দাবি দীর্ঘদিনের। তাঁরা চেয়েছিলেন, ২০১৬ থেকেই নয়া বেতন কাঠামো চালু হোক। শেষপর্যন্ত সে দাবি মিটল বটে। তবে ইউজিসি-এর বেতন কাঠামো চালু করতে চার বছর সময় লেগে রাজ্য সরকারের। মঙ্গলবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে অধ্যাপক সংগঠনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, 'বেশি কিছু চাইবে না। ধরে নিন একটা ছোট উপহার। কেন্দ্রে সমান বেতন দাবি করছেন কেউ কেউ।  কিন্তু তা তো হতে পারে না। আমার যতটুক সাধ্য, ততটুকুই দেব। ইউজিসি-এর নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী বেতন পাবেন অধ্যাপকরা।  পয়লা জানুয়ারি ২০২০ থেকে লাগু হবে নতুন বেতন কাঠামো।  আর ১৬-১৭, ১৭-১৮, ১৮-১৯ ও ১৯-২০ অর্থবর্ষে তিন শতাংশ হারে বেতনবৃদ্ধি হবে।'  তবে এরিয়া নয়, আগামী বছর থেকে স্রেফ বকেয়া টাকা পাবেন অধ্যাপকরা।

রাজ্য সরকারের তিন শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধির সিদ্ধান্তে অবশ্য খুশি নন অধ্যাপকরা। বরং নিজেদের বঞ্চিত বলেই মনে করছে অধ্যাপকদের একাংশ।  মুখ্যমন্ত্রীর অবশ্য দাবি, 'বছর অনেক টাকা দেনা মেটাতেই বেরিয়ে যায়।  এ বছর ৫০ হাজার কোটি টাকা কেন্দ্রকে দিতে হবে।  কেন্দ্র কিন্তু আমাদের ঠিকমতো টাকা দিচ্ছে না, উল্টে আমাদের থেকে প্রতিমাসে টাকা কেটে নিচ্ছে। সেখান থেকে যেটুকু পাচ্ছি, আপনাদের দিচ্ছি। '