যাত্রী বিক্ষোভের জেরেই কি শেষপর্যন্ত চাকা ঘুরল? লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু নিয়ে আলোচনা চেয়ে এবার রাজ্যকে চিঠি দিল রেল। কবে আলোচনা সম্ভব, তা জানতে চাওয়া হয়েছে চিঠিতে। তাহলে কি রাজ্যে খুব তাড়াতাড়ি ট্রেন চালু হয়ে যাবে? জল্পনা তুঙ্গে।

আরও পড়ুন: নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত, এবছর দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিষেধ শহরের এই বিখ্যাত পুজোয়

করোনা আতঙ্কের মাঝে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দ ফিরছে জনজীবনে। সম্প্রতি আনলক ৫-এর নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। নয়া নির্দেশিকায় কনটেইনমেন্ট জোনের বাইরে সিনেমা হল, থিয়েটার, মাল্টিপ্লেক্স, এমনকী, বিনোদন পার্কগুলি খোলার অনুমতি মিলেছে। কিন্তু লোকাল ট্রেন পরিষেবা কবে থেকে চালু হবে? তা এখনও স্পষ্ট নয়। করোনা পরিস্থিতিতে আপাতত স্রেফ রেলকর্মীদের জন্য হাতেগোনা কয়েকটি স্পেশাল ট্রেন চলছে। রেলের তরফে চিঠি জানানো হয়েছে, আনলক পর্বে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে স্পেশাল ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করছেন সাধারণ যাত্রীরাও। ফলে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি স্টেশনে অবরোধ ও বিক্ষোভ হয়। এই পরিস্থিতিতে শহরতলি থেকে লোকাল ট্রেনে চালানোর জন্য় রাজ্যের আলোচনায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে রেল। 

আরও পড়ুন: করোনা গবেষণায় কামাল করলেন বাঙালি অধ্যাপক , আমেরিকায় বসে পথ দেখালেন দীপ্ত ভট্টাচার্য

কিন্তু লোকাল ট্রেনে চালুর করার ক্ষেত্রে রাজ্যের ভূমিকাটা ঠিক কী? রেল জানিয়েছে, করোনা বিধি মেনে ট্রেনে চালানোর জন্য তারা প্রস্তুত। কিন্তু রাজ্য় সরকার যদি অনুমতি না দেয়, তাহলে পরিষেবা চালু করা সম্ভব নয়। সেকারণে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনার জন্য দিনক্ষণ জানতে রেল, রাজ্যকে চিঠি দিয়েছে।  নবান্নের তরফে অবশ্য় রেলের চিঠি নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। এদিকে আবার রেল পরিষেবা যদি চালু হয়, তাহলে কী কী নিয়ম মেনে চলতে হবে, সেই সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করে আরপিএফও।