দেড়শোতম বছরে নাম বদলে গিয়েছে কলকাতা বন্দরের। এবার কি নাম বদল হবে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল-এরও? কলকাতার এই ঐতিহাসিক স্থাপত্যের নাম রানি লক্ষ্মীবাই করার দাবি তুলেছেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তাঁর যুক্তি,' ১৮৫৭ সালে ঝাঁসির রানি লক্ষ্মীবাই-এর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে ভারতের দখল নেন ইংল্যান্ডের রানি ভিক্টোরিয়া এবং ৯০ বছর ধরে লুটতরাজ চালান।' কলকাতা বন্দরের নাম বদলের সিদ্ধান্তকেও স্বাগত জানিয়েছেন সুব্রহ্মণ্যম।

দেখতে দেখতে দেড়শো বছর পার। কলকাতা বন্দরের অনুষ্ঠানে যোগ দিতেই দু'দিনের সফরে শহরে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে নাম বদলের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন তিনি। কলকাতা বন্দরের নাম বদলে হচ্ছে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় বন্দর। মোদী বলেন, 'শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় দেশে শিল্পায়নের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ কারখানা, হিন্দুস্থান এয়ারক্র্যাফ্ট ফ্যাক্টরি, সিন্ধ্রি ব্রীজ কারখানা, দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশন-এর উন্নয়নে বড় ভূমিকা ছিল তাঁর।  স্বাধীনতার পর ভারতের জন্য নতুন নীতি ও পরিকল্পনা করেছিলেন শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও বাবাসাহেব আম্বেদকর।' প্রধানমন্ত্রীর আক্ষেপ, 'শ্যামাপ্রসাদ ও আম্বেদকর-এর পরিকল্পনা রূপায়ণের জন্য পরবর্তীকালে যথাযথ বরাদ্দই করা হয়নি।' কলকাতা বন্দরের নাম বদলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে টুইট করেছেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তিনি লিখেছেন, 'আমি নমো-র মতামতকে স্বাগত জানাই। কলকাতার ইতিহাসকে ফিরে দেখা উচিত। তাঁর উচিত ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের নাম বদলে রানি ঝাঁসি স্মারক মহল করা।'

 

উল্লেখ্য, ব্রিটিশরা ভারত দখল করার ইংল্যান্ডের রানি ভিক্টোরিয়া ভারতসম্রাজ্ঞী উপাধি পেয়েছিলেন। তাঁর ভারতে আগমনকে স্মরণীয় করে রাখতে কলকাতায় শ্বেতপাথরে মোড়া একটি স্মৃতিসৌধ তৈরি করা হয়। স্মৃতিসৌধটির নাম রাখা হয় ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল।