কমাতে হবে  বেসরকারি স্কুলের ২০ শতাংশ ফি। কলকাতা হাইকের্টের মতোই রায় বহাল থাকছে সুপ্রিম কোর্টেও। পড়ুয়াদের টিউশন ফি কমানো নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের কাছে আর্জি জানিয়েছিল সারা দেশের বেসরকারি স্কুল। কিন্তুপরে তাই আবেদন খারিজ করে দেয় কোর্ট।

প্রথমে কী আর্জি জানিয়েছিল বেসরকারি স্কুলগুলি


করোনা আবহে এমনিতেই কাজ হারিয়ে বহু মানুষ। স্কুল বন্ধ থাকা কালীন চলেছে অনলাইন ক্লাস। তবে এদিকে এবার অন্যান্য ফি আর এখন থেকে নেওয়া যাবে না। এমনটাই জানিয়েছে অশোক ভূষণ, সুভাষ রেড্ডি,  এম আর শাহের বেঞ্চ। জন স্বার্থ মামলায়   বেসরকারি স্কুলের ২০  শতাংশ ফি কমানোর নির্দেশ দিয়েছে  সুপ্রিম কোর্ট। পড়ুয়াদের টিউশন ফি কমানো নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের কাছে প্রথমে আর্জি জানিয়েছিল বেসরকারি স্কুলগুলি। কিন্তুপরে তারপরেই আবেদন খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

 

 প্রতিবাদ সার্থক রুপ পেয়েছে


 প্রসঙ্গত, করোনা আবহে রাজ্য তথা দেশজুড়ে এক কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে সবাই যাচ্ছে। আর এই পরিস্থিতিতে অনেকেই কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। অনেকে বেতনের অধিকাংশ কমে গিয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে যদি স্কুল কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত মাত্রায় ফি বাড়ায় তা অভিবাবকদের পক্ষে দেওয়া সম্ভব নয়। তাই ইতিমধ্য়েই ফি বৃদ্ধি সহ একাধিক অভিযোগ নিয়ে প্রতিবাদের পথে নেমেছে- দমদম সেন্ট মেরি এন্ড ডে স্কুল,  একে ঘোষ মেমোরিয়াল, নারায়নপুর সেন্ট জোন্স স্কুল, জিডি বিড়লা, তারাতলা নেচার পার্কের বিড়লা ভারতী স্কুল, দিল্লি পাবলিক স্কুল,অ্যাসেম্বলি অফ গড চার্চ স্কুল, হরিয়ানা বিদ্যামন্দির, অশোক হাই সেকেন্ডারি স্কুল,  ক্যালকাটা পাবলিক স্কুল, বউবাজারের সেন্ট মাইকেল স্কুল সহ বেহালা ওরিয়েন্ট ডে স্কুলের অভিভাবকরাও।  তবে এবার সেই প্রতিবাদ সার্থক রুপ পেয়েছে বলে মত অভিভাবকদের।