লোকাল ট্রেন নিয়ন্ত্রণেও এবার মামলা উঠল হাইকোর্টে। 'কালীপুজো, কার্তিকপুজো বা জগদ্বাত্রীপুজোর মন্ডপ নো এন্ট্রি রেখে আদালতের নির্দেশ পালন করতে হলে বুধবার
থেকে লোকাল ট্রেনের চলাচলও নিয়ন্ত্রন করতে হবে'। এই আবেদন নিয়েই হয়েছে নতুন মামলাটি।

 

 

আরও পড়ুন, রবিবার সাতসকালে সল্টলেকে বিভিন্ন বাজারে EB-র হানা, দাম বেশি নেওয়ার অভিযোগ

 

 দুর্গাপুজোর ভিড় নিয়ন্ত্রনের জন্য যিনি আবেদন করেছিলেন, তিনি করলেন ফের মামলা


জানা গিয়েছে, ওই আবেদনে বলা হয়েছে যে, শহরতলির যে সব জায়গা বড় পুজোর জন্য বিখ্যাত, কালীপুজো থেকে ভাইফোঁটা পর্যন্ত সেই সব স্টেশন এবং তাঁর আগে-পরে ১০ কিমি পর্যন্ত স্টেশনে লোকাল ট্রেন দাঁড় করানো যাবে না। একইভাবেই জগদ্বাত্রী পুজোতেও যাতে একই নির্দেশ দেওয়া হয় সেটা চেয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুর্গাপুজোর ভিড় নিয়ন্ত্রনের জন্য যিনি আবেদন করেছিলেন, সেই অজয়কুমার দে এই মামলাটি করছেন। 

আরও পড়ুন, গলা ব্যথা নিয়ে নারকেলবাগানের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রের মৃত্যু, কাঠগড়ায় ILS হাসপাতাল

 


'স্টেশনে যাত্রী ওঠানামা বন্ধের নির্দেশ দিতে হবে আদালতকে'

অজয়কুমার দের আইনজীবি সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায় বলেন যে,'যদি সত্যিই সামনের উৎসবের দিনগুলিতে করোণা সংক্রমণ রোধ করতে হয়, তাহলে পুজোতে শহরতলির নির্দিষ্ট কিছু স্টেশনে যাত্রী ওঠানামা বন্ধের নির্দেশ দিতে হবে আদালতকে। আমরা ইতিমধ্যেই মামলার সব পক্ষকে নথি দিয়েছি'।