জোকার একটি বাড়ি থেকে একই পরিবারের ৩ জন আত্মঘাতি। এহেন ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই বুধবার চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল ঠাকুরপুকুর এলাকায়। কী কারণে এত বড় ঘটনা ঘটল জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন, বিদ্যুৎকর্মীর মৃত্যু ঘিরে রহস্য, 'বিদ্যুৎপিষ্ট' নাকি অন্য কারণ, তদন্তে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ 

 

বুধবার জোকার পাত্র পাড়া একই পরিবারের ৩ জন আত্মহত্যা করল। বুধবার সকালবেলা প্রতিবেশীরা ডাকতে গেলে দেখে, বাবা , মা এবং ছেলে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পরিবারের সদস্যদের নাম চন্দ্র ব্রত মন্ডল বয়স ৫৬ বছর। মায়া  রানী মন্ডলের বয়স ৪৮ বছর। সুপ্রিয়া মণ্ডলের ছেলে বয়স ২২ বছর।  বুধবার সকালবেলা প্রতিবেশীরা ডাকতে গেলে একই ঘরের মধ্যে দেখতে পায়, বাবা-মা  পাখায় এবং মধ্যখানের পিলারের ছেলে ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে। খবর দেওয়া হয় ঠাকুর ঠাকুরপুকুর থানায়। দেহ উদ্ধার করে ইতিমধ্য়েই ময়নাতদন্তের জন্য বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন, 'আমারও ইচ্ছে করে গয়না পরতে', 'সুখ ভোগের' দায়ে শুভেন্দুকে নিশানা মমতার  

 

পুলিশ তদন্ত শুরু করছে। প্রাথমিক অনুমান ও প্রতিবেশী সূত্রের খবর, অনেক জায়গা থেকে ধার ও দেনা রয়েছে বলেই এই আত্মহত্যা। তবু আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে, প্রশ্ন উঠছে অন্য কোনও বড় কারণ লুকিয়ে নেই তো এই আত্মহত্যা পিছনে, তা জানতে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষায় পুলিশ।