কালী পুজো উপলক্ষে সাড়ম্বরে সেজে উঠেছে  দক্ষিণেশ্বরে মায়ের মন্দির। প্রায় সারা বছরই গঙ্গার পাড়ে সুর্যদয়ের পর থেকেই পুরো মন্দির প্রাঙ্গণে শুরু হয়ে যায় পার্থনার্থীদের ভীড়। বিশেষ করে এই সময়টাতেই বহু দূরদূরান্ত থেকে মানুষ এখানে আসেন। তাই দক্ষিণেশ্বরে মা ভবতারিণীকে পুজো দিতে এসে যাতে কোনও ভক্তই অসুবিধায় না পড়েন, তার জন্য় কড়া নিরাপত্তার ব্য়বস্থা রাখছে পুলিশ-প্রশাসন। আর রবিবার সকাল থেকেই মায়ের মন্দিরের নিরাপত্তার জন্য়  মোতায়ন করা হয়েছে পর্যাপ্ত পুলিশ বাহিনী। রবিবার রাত ১০টায় ঘট পুজোর মধ্য় দিয়েই শুরু হবে দক্ষিণেশ্বরে মা ভবতারিণীর পুজো , চলবে সোমবার ভোর ৪টে পর্যন্ত। 

আরও জানুন, কেমন হল মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির ঠাকুর, 'বাড়ির মায়ের' ছবি নিজেই পোস্ট করলেন মমতা

পুজোর দিনে সোনার গয়নায় মা ভবতারিণীকে সাজিয়ে তোলা হবে। পুজো উপলক্ষে মাকে অর্পন করা হবে নানা পদে সাজানো ভোগ। ভাত, ডাল, তরকারি, ভাজা, মাছ, চাটনি ,মিষ্টান্ন থাকবে মায়ের ভোগে। আর বিশেষ করে কালীপুজো উপলক্ষে আলোর রোশনাই ভরিয়ে তোলা হয়েছে  দক্ষিণেশ্বর মন্দির প্রাঙ্গণকে। দক্ষিণেশ্বরে মা ভবতারিণীর পুজো দেখতে সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের আসার কথা। যেহেতু দক্ষিণেশ্বরে কালীপুজোর দিন প্রায় লক্ষাধিক পার্থনার্থী এখানে আসেন, তাই মন্দিরে প্রবেশ ও বেরোনোর জন্য প্রধান তিনটি গেটই খোলা থাকছে।

আরও পড়ুন, ২৩ হাজার অভিযোগের কিনারা, কলকাতার নগরপালকে ধন্যবাদ লন্ডন পুলিশের

দক্ষিণেশ্বরে মায়ের মন্দিরে পুজো দিতে আসা পার্থনার্থীদের বরাবরের মতই মোবাইল নিয়ে ঢোকা নিষিদ্ধ। ইভটিজিং ও শ্লীলতাহানি রুখতে পর্যাপ্ত সংখ্যায়  মহিলা পুলিশ থাকবে মন্দির চত্বর ও গঙ্গার ঘাটগুলিতেও। চুরি-ছিনতাই হয়ে যাতে কোনও ভক্ত সর্বশান্ত না হয়, সে জন্য় থাকবে সাদা পোশাকের পুলিশ। এছাড়াও গঙ্গাবক্ষে রিভার ট্র্যাফিক পুলিশ  নজরদারি চালাবে। তাছাড়া সিসিটিভি ফুটেজ সবসময় নজরে রাখবে পুলিশ। অবশ্য় মন্দিরের নিজস্ব নিরাপত্তারক্ষীরাও নিরাপত্তায় আরও জোরদার হবেন। সবমিলিয়ে আঁটসাঁট নিরাপত্তায় মোড়া থাকছে দক্ষিণেশ্বর মন্দির।