টিকটক নিয়ে মুখ খুললেন বসিরহাটের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ নুসরত জাহান। তাঁর অভিযোগ আবেগপ্রবণ হয়েই এই পদক্ষেপ নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। সোমবার রাতে ৫৯টি চিনা অ্যাপ ব্যান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তারমধ্যে রয়েছে জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ টিকটকও। টিকটকে ব্যবহারে অত্যন্ত সাবলীল তৃণমূল কংগ্রেসের অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত। 

বুধবার নুসরত জাহান বলেন, এটি একটি প্ররোচিত সিদ্ধান্ত। অ্যাপ বন্ধ করার পিছনে  কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও কৌশলগত পরিকল্পনা রয়েছে কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। নুসরতের এই একটি বিনোদনমূলক অ্যাপ। তাঁর প্রশ্ন এই অ্যাপ বন্ধ হওয়ার ফলে যাঁরা বেকার হবেন তাঁদের কী হবে? জনগণ ভোগান্তিতে পড়বে বলেও আশঙ্কা করেছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, জাতীয় নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের নিষেধাজ্ঞায় তাঁর কোনও সমস্যা নেই।  তবে তাঁর প্রশ্নে উত্তর কে দেবে তাও জানতে চান তিনি। 

কলকাতায় ইসকনের উল্টো রথযাত্রার অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন অভিনেত্রী সাংসদ। সেখানেই সংবাদ মাধ্যমের সামনে টিকটক প্রসঙ্গে এমনই মন্তব্য করেন তিনি। ২০১৮ সালের দোশরা এপ্রিল টিকটকে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। নুসরতের কথায় এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মই অনুগামীদের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগের একমাত্র সেতু। টিকটকে তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যাও ১৪ লক্ষ ছাড়িয়েছে। 

গতকালই তৃণমূল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন শুধু কতগুলি চিনা অ্যাপ বন্ধ করাই যথেষ্ট নয়। গোটা দেশের মানুষই চায় চিনকে উপযুক্ত জবাব দিতে। কী ভাবে জবাব দেওয়া হবে তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিক কেন্দ্রীয় সরকার। আর তা যদি না হয় তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারের ওপর থেকে দেশের মানুষের আস্থা উঠে যাবে।