বিজেপির গান্ধী সংকল্প যাত্রার পাল্টা এবার বিজয়া সম্প্রীতি যাত্রার উদ্য়োগ নিল তৃণমূল। আগামী ১৯ থেকে ২৪ অক্টোবর রাজ্যজুড়ে বিজয়া উপলক্ষে সম্প্রতি যাত্রা করবে মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের দল। এমনই জানিয়েছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। 

চায়ে পে চর্চার পাশাপাশি টানা জনসংযোগ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে বিজেপি। সেখানে গেরুয়া ব্রিগেডের থেকে কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়ছিল তৃণমূল। শহরের বেশিরভাগ পুজো তৃণমূলের কর্তাব্যক্তিদের দায়িত্বে থাকায় সময় পাচ্ছিলেন না তাঁরা। কিন্তু পুজোর পর বিজেপি সংকল্প কর্মসূচির কথা ঘোষণা করতেই এবার পাল্টা পথে নামার ডাক দিল তৃণমূল। এবিষয়ে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে চলবে এই বিজয়া সম্প্রীতি যাত্রা। যেখানে দলীয় নেতা কর্মীরা বেশিরভাগ মানুষের কাছে পৌঁছবেন। পার্থবাবু আরও জানান,শীঘ্রই  দিদিকে বলো কর্মসূচির দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ শুরু করা হবে। ডিসেম্বরের মধ্যে দিদিকে বলো কর্মসূচি শেষ করা হবে। ১০ হাজার গ্রামের যে লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই তা শেষ হয়ে যাবে। 

তবে শুধু দলীয় কর্মসূচির কথা বলেই থেমে থাকেননি পার্থবাবু। এদিন জিয়াগঞ্জে শিক্ষক পরিবার  খুন নিয়েও বিজেপিকে একহাত নিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন,জিয়াগঞ্জ নিয়ে প্রথমে বিজেপি এক কথা বলেছে, পরবর্তীতে আরেক কথা বলেছে। আরএসএস এর তত্ত্ব খাড়া করতে চেয়েছিল। কিন্তু পুলিশ আসল তথ্য সামনে বের করে এনেছে। এখন তাই রাজ্যে কোনও সুযোগ না পেয়ে দিল্লিতে গেছে রাষ্ট্রপতির কাছে। 

সম্প্রতি বিশ্বের আঙিনায় ভারত তথা বাঙালির মুখ উজ্জ্বল করেছেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। অর্থনীতিতে  নোবেল পুরস্কার পাওয়ায় তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন সেই প্রসঙ্গে পার্থবাবু বলেন, মানুষকে নিয়ে কাজ করেছেন অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। আমরা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করব তাকে কীভাবে সম্মান দেওয়া যায়।