অমিত শাহর ভার্চুয়াল সভাকে রীতিমত কটাক্ষ করলেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রথম সারির দুই নেতা অরূপ বিশ্বাস ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তীব্র সমালোচনা করেন বিজেপির। পার্থর নিশানায় ছিলেন অমিত শাহ। পার্থ চট্টোপাধ্যায় লিখেছেন এই লোকটির নাম মনে রাখবেন যিনি আপনার ভোটের জন্য ক্ষুধার্ত, অন্য কোনও কিছুর জন্য নয়। পাশাপাশি তিনি বলেন মহামারী ও প্রকৃতিক বিপর্যয়ের সঙ্গে লড়াই করছে বাংলা। সেই সময় অন্য বিষয়গুলিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। অমিত শাহকে নিশানা করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় আরও বলেন যিনি বাংলার সংস্কৃতি পুনরুদ্ধারের কথা বলছেন তারই চোখের সামনে তাঁর লোকরাই বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙুচর করেছিল। আর সেই মূর্তি পুনরুদ্ধার করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 


অরূপ বিশ্বাস সাংবাদিক সম্মেলনে বসে সরাসরি বলেন এই রাজ্যে বিজেপি ভার্চুয়াল থেকে যাবে। পাশাপাশি তিনি বলেন মাটিতে নেমে কী করে কাজ করতে হয় তা রাজ্যবাসীকে দেখিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অরূপ বিশ্বাস ২০১৪ সালের ভোটের আগে দেওয়ার প্রতিশ্রুতির প্রসঙ্গ তুলে এনে বলেন বিজেপি যা বলে তা করে না। আর যা করে তা কখনই বলে না। নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের প্রসঙ্গও উত্থাপন করে তীব্র সমালোনা করেন তিনি। পাশাপাশি অমিত শাহকেও নিশানা করেন অরূপ বিশ্বাস। 

রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কিছুদিন আগেই কেন্দ্রে সঙ্গে সংঘাতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে অরূপ রায়ের মন্তব্য বিজেপি একটি ভাষণ সর্বস্ব দল। গুজরাত প্রসঙ্গও উত্থাপন করেন অরূপ বলেন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোদীর রাজ্যেই মৃত্যুর হার সব থেকে বেশি। বারবারই বাংলা ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কালিমালিপ্ত করতে চেয়েছে বিজেপি। সেই কারণেই বারবার নিশানা করা হয়েছে রাজ্যকে। অরূপ রায়ের নিশানায় অবশ্য শুধু বিজেপি ছিল না। তিনি নিশানা বানিয়েছিলেন বাম আর কংগ্রেসকেও। তিনি বলেন বিজেপি গান গাইছে বাম আর কংগ্রেস তবলা বাজাচ্ছে। প্রবাসী শ্রমিক প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অরূপ বলেন কেন্দ্রের বিভ্রান্তকর নীতির জন্যই সমস্যায় পড়তে হয়েছে তাদের। রাজ্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।