ব্য়স্ত অফিস টাইম। কিন্তু রাস্তায় সার দিয়ে দাঁড়িয়ে বাস, গাড়ি-সহ অন্যান্য যানবাহন। কারণ রাস্তার মাঝখানেই বসেছে বাজার। দিব্যি বিক্রি হচ্ছে সবজি থেকে শুরু করে মাছ, মাংস সবই বিক্রি হচ্ছে সেখানে। দিব্যি চলল বেচাকেনা।  

সপ্তাহের প্রথম কাজের দিনে এমনই অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী থাকল বেহালার শকুন্তলা পার্কে। আসলে বিক্ষোভ  দেখানোর জন্যই এভাবে রাস্তা দখল করে বাজার বসিয়ে দিলেন ব্যবসায়ীরা। অভিযোগ, পর্ণশ্রীর শকুন্তলা পার্কে যে বাজার রয়েছে সেটি বহু পুরনো। দীর্ঘদিন ধরেই তার হাল খারাপ। বাজারের ভিতরে প্লাস্টার খসে পড়েছে, জলও নেই বাজারে।

অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই বাজার সারানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা। কিন্তু ভোট মিটতেই আর কারও দেখা পাওয়া যায় না। তাই দীর্ঘদিন অপেক্ষা করার পরেও পুরসভা নতুন বাজার তৈরি করে না দেওয়ায় শেষ পর্যন্ত এ দিন সকাল সাড়ে ন'টা নাগাদ রাস্তার উপরেই বাজার বসিয়ে দেন ব্যবসায়ীরা। 

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, বাজারের অবস্থা এতটাই বিপজ্জনক যে সেখানে ক্রেতারাও ঢুকতে চাইছেন না। কারণ প্লাস্টার খসে পড়ে যে কোনও মুহূর্তে ক্রেতা বা ব্যবসায়ীরা আহত হতে পারেন। রাস্তার উপরে বাজার বসায় প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে এ দিন অবরুদ্ধ হয়ে থাকে বেহালা চৌরাস্তা থেকে বজবজগামী শকুন্তলা পার্ক মেন রোড। শেষ পর্যন্ত ঘটনাস্থলে আসেন কলকাতা পুরসভার চোদ্দ নম্বর বরোর চেয়ারম্যান মানিকলাল চট্টোপাধ্যায়। তিনি প্রতিশ্রুতি দেন, সাতদিনের মধ্যেই বাজারের সংস্কার কাজ শুরু হবে। অন্যান্য সমস্যারও সমাধান করার প্রতিশ্রুতি দেন মানিকবাবু। এর পরেই অবরোধ তোলেন ব্যবসায়ীরা।