শীতের মধ্যেই আবারও রাজ্যে রয়েছে বৃষ্টির সম্ভাবনা। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আজ থেকেই বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দার্জিলিং ও কালিম্পং-এ। একইভাবে উত্তরবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই আগামীকাল ও পরশু শুরু হতে পারে বৃষ্টি। বৃষ্টি হলেও হালকা তুষারপাত বেশ ভালো করেই উপভোগ করতে পারবে সিকিমবাসী।  উত্তরবঙ্গে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকবে রবিবার অবধি। পাশাপাশি আরও একটি পশ্চিমী ঝঞ্জা প্রবেশ করতে চলেছে জম্মু-কাশ্মীরে। যার প্রভাবে আজ ও কাল জম্মু কাশ্মীর হিমাচল প্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডে তুষারপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি শিলা বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে পাঞ্জাব, হরিয়ানা. রাজস্থান, চন্ডিগড়, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ ও মধ্যপ্রদেশে।

আরও পড়ুন- মকরসংক্রান্তিতে দুর্ঘটনা, স্নান করতে গিয়ে নদীতে তলিয়ে গেল বালক

পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাব এ রাজ্যে বৃষ্টি ও জলীয়বাষ্প বেশি থাকার আশঙ্কা রয়েছে। উত্তরবঙ্গে বৃষ্টিপাত হলেও দক্ষিণবঙ্গে আপাতত বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। তবে হালকা উত্তরবঙ্গে বৃষ্টিপাতের প্রভাবের ফলে মাঝারি কুয়াশার প্রকোপ থাকবে দক্ষিনবঙ্গের জেলাগুলিতে। নদিয়া থেকে শুরু করে দুই চব্বিশ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব মেদিনীপুরে বেশ কুয়াশার সম্ভাবনা রয়েছে। গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৩.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিক। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ৩৭ থেকে ৯৯ শতাংশ।

আরও পড়ুন- মেডিকেটেড জুতো পড়বে এবার শহরবাসী, উৎকর্ষের কেন্দ্র এবার কলকাতাতেও

ঝঞ্ঝার প্রভাব এই আগামী কয়েকদিন দিনে ও রাতের তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে মনে করছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। কলকাতায় সকালের দিকে হালকা কুয়াশা থাকলেও সারাদিন মেঘমুক্ত পরিষ্কার আকাশ থাকবে। আজ সকালের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেয়ে রয়েছে ১৪.৬ ডিগ্রী সেলসিয়াসে। যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি উপরে। গতকাল দিনের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি উপরে ছিল। কলকাতার বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ ৩৯ থেকে ৯৯ শতাংশ।