মেডিকেটেড জুতোর উৎকর্ষ কেন্দ্র গড়ে উঠতে চলেছে যোধপুর সহ খাস কলকাতার বুকে। দুর্ঘটনাগ্রস্ত কেউ, হাড়ের বৃদ্ধিতে অসামঞ্জস্য আছে যাঁদের  বা ডায়াবিটিসে ভুগছেন যাঁরা, তাঁদের  কথা মাথায় রেখেই ওই কেন্দ্রে তৈরি হবে বিশেষ ডিজাইনের জুতো। একই সঙ্গে সেখানে গড়ে তোলা হচ্ছে মরুভূমি, পাহাড় কিংবা বিস্ফোরণের আশঙ্কা রয়েছে, এমন জায়গাগুলিতে ডিউটি করার জন্য ভারতীয় সেনা জওয়ানদের উপযোগী সেফটি-শু।

আরও পড়ুন, বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদ, যাদবপুরে বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ

দেশের ১২টি  এফডিডিআই অর্থাৎ ফুটওয়্যার ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিটের মধ্যে যোধপুরের সংস্থাটিতে এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই গড়ে তোলা হচ্ছে উৎকর্ষ কেন্দ্রটি। ওই ১২টি কেন্দ্রের একটি রয়েছে কলকাতায়। সেখানে গড়ে উঠতে চলেছে লেদার পার্স, ব্যাগ, সুটকেস ও জ্যাকেটের ডিজাইনের উৎকর্ষ কেন্দ্র। এফডিডিআই সূত্রের খবর, ১২টি কেন্দ্রের মধ্যে বিশেষ বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে ৭টি কেন্দ্রেই এমন 'সেন্টার অফ এক্সেলেন্স' গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। যোধপুর ও কলকাতা ছাড়াও রায়বেরিলি, হায়দরাবাদ, রোহতক, নয়ডা, চেন্নাইয়ের এফডিডিআইয়ে তৈরি হবে এমন উৎকর্ষ কেন্দ্র।  

আরও পড়ুন, ভুয়ো তথ্য় দিয়ে খাস কলকাতার বুকে ব্যাঙ্ক জালিয়াতি, গ্রেপ্তার ৪
 

 দুর্ঘটনা বা হাড়ের নানা সমস্যার কারণে অনেক মানুষেরই বিশেষ ধরনের জুতোর প্রয়োজন হয়। অথচ ভারতে চাহিদা অনুযায়ী ওই বিশেষ জুতো তৈরির সুসংগঠিত কোনও ব্যবস্থা এখনও পর্যন্ত নেই। আবার ডায়াবিটিসে ভুগছেন যাঁরা, তাঁরাও বিশেষ ধরনের জুতো পরলে উপকার পেতে পারেন। কারণ, ওই বিশেষ ধরনের জুতোর বিশেষ কয়েকটি পয়েন্টে প্রেশার বা পায়ের চাপ পড়লে ইনসুলিন ক্ষরণের মাত্রা বাড়ে বা কমে।  এই কাজে সাহায্য নেওয়া হচ্ছে বিদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের, এই বিষয়ে যে প্রতিষ্ঠানের বিশেষ দক্ষতা রয়েছে।