পুজোর ক'দিন বৃষ্টিতে কাটবে। সপ্তমীতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। লন্ডভন্ড হতে পারে মন্ডপ। পূর্ব মেদিনীপুর ও দুই ২৪ পরগনায় ক্ষতির আশঙ্কা। কলকাতা হাওড়া হুগলি কেউ বইবে ঝোড়ো হওয়া। অতিবৃষ্টিতে জল জমতে পারে শহরে।নিম্নচাপ আরও শক্তি বাড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের কাছাকাছি আসছে। অভিমুখ বাংলাদেশ।


মধ্য বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া এই নিম্নচাপের অভিমুখ ছিল অন্ধ্র প্রদেশ উপকূলে। স্থলভাগের না ঢুকে সেটি অভিভুত পরিবর্তন করে।আরও শক্তি বাড়িয়ে গভীর নিম্নচাপে এটি ওড়িশা পশ্চিমবঙ্গ উপকূলে বাংলাদেশের দিকে এগোবে।পশ্চিমবঙ্গ উপকূলের কাছাকাছি এসে এটি অতি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। এর ফলে সমুদ্র উত্তাল হবে বইবে ঝোড়ো হাওয়া। বৃহস্পতিবার থেকেই পূর্ব মেদিনীপুর উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা ৩৭ কিলোমিটার বেগে ঝড় হতে পারে। শুক্র ও শনিবার ঝড়ো হাওয়া বইতে পারে কলকাতা হাওড়া হুগলিতে। সর্বোচ্চ ৫০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝড়ো হাওয়া বইতে পারে। এর প্রভাবে আবহাওয়ার পরিবর্তন রাজ্যে। শনিবার পর্যন্ত ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সর্তকতা দক্ষিণবঙ্গে। দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই হালকা মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা।


অপরদিকে, বৃহস্পতিবার মহাষষ্ঠী। যদিও সূর্যোদয় হয়েছে আগের মতোই মেঘের আড়ালেই। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, মধ্য বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরি। সরাসরি প্রভাব অন্ধ্র ও উড়িষ্যা উপকূলে। বৃহস্পতিবার বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা।পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় অপেক্ষাকৃত বেশি বৃষ্টির সম্ভাবনা। ২২ থেকে ২৪ শে অক্টোবর দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বিক্ষিপ্তভাবে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা।বৃহস্পতিবার দু'এক জায়গায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকছে। দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বিদায় রেখা ফের সক্রিয় হবে। আগামী দুই থেকে তিন দিনে পশ্চিমবঙ্গ সিকিম ও ছত্রিশগড় সহ বিভিন্ন রাজ্য থেকে বর্ষা-বিদায় পর্ব শুরু হবে। একের পর এক নিম্নচাপের জন্য বর্ষা-বিদায় রেখা একই জায়গায় আটকে ছিল। 
 


আলিপুর আবহাওয়ার দফতর সূত্রে খবর, পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগণায় বজ্রবিজ্যুৎ সহ বৃষ্টির কথা ঘোষণা আগেই জানিয়েছে হাওয়া অফিস।  বর্ষা এখনও বিদায় নেয়নি, পুরো পূজাতেই বর্ষার প্রভাব থাকবে। এমনটাই জানিয়েছে হাওয়া অফিস। একের পর এক নিম্নচাপ রয়েছে বঙ্গোপসাগরের উপর। আগামী ২৯ তারিখ মধ্য বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে চলেছে। যা ৩০ তারিখ শক্তি বাড়িয়ে বঙ্গোপ সাগরে বিরাজ করবে। যার অভিমুখ উড়িষ্যা অন্ধ্র উপকূলে। এই নিম্নচাপ এর ফলে মৌসুমী বায়ু সক্রিয় হয়ে জলীয় বাষ্পের যোগান বাড়বে আমাদের রাজ্যে। তাই বৃষ্টি হতে পারে আমাদের রাজ্যে। অপরদিকে   ২১ থেকে ২৬ বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে দক্ষিণবঙ্গে। তবে বেশি বৃষ্টি হবে পুজোর মধ্যে ২২,২৩ ও ২৪ তারিখ।  ২১ থেকে ২৬ কলকাতাতেও বৃষ্টি বাড়বে।