মহাষষ্ঠীতে দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এইবারই তিনি প্রথম বাংলার বুকে দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করছেন। সল্টলেকের ইজেডসিসি-র দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করলেন নরেন্দ্র মোদী।  পুজো উদ্বোধনের সঙ্গে সঙ্গে দুর্গাপুজো উৎসবকে ঘিরে শুভেচ্ছা বার্তাও দিলেন রাজ্যবাসীকে, মোদি। 

আরও পড়ুন, মহাষষ্ঠীতে বারাসাতে মোদি, রাত পেরোলেই করবেন পুজোর উদ্ধোধন


পুরোপুরি বাঙালি পোশাকে দিল্লির নিজ বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালে দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করলেন মোদী। এবং মাতৃবন্দনার সঙ্গে তাঁর ভাষণ শুনতে অনলাইনে ভক্তদের ভীড়। দুর্গা পুজোর পর্ব ভারতের একতার প্রতীক। দুর্গা পুজো বাংলার সংস্কৃতির প্রতীক। বাংলার প্রবিত্র ভূমিকে প্রনাম করেন প্রধানমন্ত্রী। বাংলার মণীষীদের শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। স্বাধীনতা সংগ্রামীদেরও শ্রদ্ধা জানান তিনি। প্রসঙ্গত, সল্টলেকের ইজেডসিসি ব্লকে বুধবার বিকেলেই সমস্ত প্রস্তুতি ঘুরে দেখেন মুকুল রায় এবং কৈলাস বিজয়বর্গীয়। পুজো কমিটির উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলেন মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়। মুকুল রায় জানিয়ে দেন, পুজো নিয়ে কলকাতা হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছে তা মেনে চলা হবে। যার জন্য সপ্তমী, অষ্টমী, নবমীর  ইজেডসিসি-তে বহু অনুষ্ঠান বাতিল করতে হয়েছে। পরে, ঢাকিদের বাজনা শোনেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। ঢাকিদের সঙ্গে পরে কথাও বলেন তিনি। তবে ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়ের নাচের অনুষ্ঠান সূচি অপরিবর্তিত থাকছে।

 

 

আরও পড়ুন, মহাষষ্ঠীতে ঝেপে বৃষ্টি কলকাতায়, নিম্নচাপের জেরে টানার বর্ষণের পূর্বাভাস


যদিও হাইকোর্টের রায় বেরোনোর আগে  প্রধান মন্ত্রীর আবাসনে গান গাওয়ার সম্ভাবনা ছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র। মোদিকে বাঙালি সাজে এই প্রথমবার সারা বাংলা। পুরো অনুষ্ঠানটি দলের তরফে সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্প্রচার করা হচ্ছে।