শহর-শহরতলীর বাসিন্দার অনেকেই ক্ষেপে ছিল প্রকৃতির উপর। শীতের সময় গরম হাওয়া কারইবা ভালো লাগে। উৎসবের মাসে কোথাও বাহারি শীতের পোশাক পরে যাবার উপায় নেই। কারণ তা পরে গেলে দরদর করে ঘাম বেরোবে। তার উপর আবার আদ্রতা বেড়ে হাঁসফাঁস অবস্থা। তবে সব কাটিয়ে এবার সুসংবাদ দিলেন আলিপুরের আবহবিদ সঞ্জীব বন্দ্য়োপাধ্যায়। 
 

বৃহস্পতিবার বিকেলে আলিপুরের আবহবিদ সঞ্জীব বন্দ্য়োপাধ্যায় জানিয়েছেন, 'উত্তর-পশ্চিমের শীতল হাওয়ার উপর নির্ভর করে রাজ্যে ফিরল শীত। এই শীতের আমেজ বজায় থাকবে আগামী ৪ দিন। সঙ্গে পশ্চিমের জেলাগুলি যেমন পুরুলিয়া, বাঁকুড়া ,পশ্চিম বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ,বীরভূমে শৈত্যপ্রবাহের সতর্কতা বার্তা। তাপমাত্রা কমে যেতে পারে বর্তমান তাপমাত্রা থেকে ৫ ডিগ্রী, দক্ষিণবঙ্গ-সহ উত্তরবঙ্গ রাজ্য জুড়ে তাপমাত্রা অনেকটাই কমেছে কলকাতার। বৃহস্পতিবারের তাপমাত্রা ছিল ১৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়ার্স। আগামী তিন দিনে আরও ৩ ডিগ্রি কমার সম্ভাবনা রয়েছে। উত্তরবঙ্গে দার্জিলিঙে বৃহস্পতিবারে ছিল ৩.৮   ডিগ্রি সেলসিয়ার্স। 

তিনি আরও বলেন,'আগামী কয়েক দিন আরও তাপমাত্রা কমবে। এইরকম আবহাওয়া থাকবে ১৮ তারিখ পর্যন্ত। তারপর ১৯ ও ২০ তাপমাত্রা একটু বাড়বে। তারপর আবার তাপমাত্রা নিম্নমুখী হবে। দক্ষিণবঙ্গের ভোরের দিকে সামান্য কুয়াশা থাকবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আকাশ পরিষ্কার হবে।' অপরদিকে, উত্তর-পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে ৫ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা কমতে পারে। আগামী দু-তিন দিন পঞ্জাব, হরিয়ানা, চন্ডিগড়, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, রাজস্থানে শৈত্যপ্রবাহ। ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে তামিলনাড়ু সহ দক্ষিণ ভারতের  বিভিন্ন রাজ্যে বৃষ্টি অব্যাহত। ভারী বৃষ্টি তামিলনাড়ু,কেরলে।