শুক্রবার ঘন কুয়াশায় ঘুম ভাঙল শহর কলকাতায়। জাঁকিয়ে শীত এর পরিস্থিতি রাজ্যজুড়ে। কনকনে ঠান্ডার শৈত্যপ্রবাহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায়। সামান্য তাপমাত্রা বাড়লে ও জাঁকিয়ে শীতের পর্ব চলবে ডিসেম্বরের বাকি কটা দিন।    আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, বছর শেষে জেলা জুড়ে চলবে শীতের দাপট। দক্ষিণ-পূর্ব আরব সাগর মলদ্বীপ সংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপের সম্ভাবনা।আন্দামান ও নিকোবর বৃষ্টি হতে পারে সপ্তাহান্তে। নতুন করে সক্রিয় পশ্চিমী ঝঞ্জা আসবে শনিবার জম্মু-কাশ্মীরে। 

 

 


আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, বছর শেষে জেলা জুড়ে চলবে শীতের দাপট। পুরুলিয়া ,বীরভূম ,পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান ,নদিয়া,মুর্শিদাবাদ,পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামে  শৈত্যপ্রবাহের পরিস্থিতি বজায় থাকবে। দক্ষিণ-পূর্ব আরব সাগর মলদ্বীপ সংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপের সম্ভাবনা।আন্দামান ও নিকোবর বৃষ্টি হতে পারে সপ্তাহান্তে। নতুন করে সক্রিয় পশ্চিমী ঝঞ্জা আসবে শনিবার জম্মু-কাশ্মীরে। পাশাপাশি, দক্ষিণ-পূর্ব আরব সাগর মলদ্বীপ সংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপের সম্ভাবনা রয়েছে। তার জেরে আন্দামান ও নিকোবরে বৃষ্টি হতে পারে সপ্তাহের শেষের দিকে। শনিবার নতুন করে সক্রিয় পশ্চিমী ঝঞ্জা ঢুকবে জম্মু-কাশ্মীরে। এর ভাবে জম্মু-কাশ্মীর রাধা উত্তরাখান্ড হিমাচলপ্রদেশ সপ্তাহের শেষে তুষারপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সপ্তাহান্তে। এই তুষারপাতের প্রভাবে বছর শেষে আরো একটি শীতের প্রভাব আরও বাড়তে পারে  বাংলায়। আগামিকাল সকালে কুয়াশা পশ্চিমবঙ্গ সিকিম,বিহার, ঝাড়খন্ডে।ঘন কুয়াশার সর্তকতা পঞ্জাব এবং কিছুটা হরিয়ানা, চন্ডিগড়, দিল্লিতে।

 

 

 

হাওয়া অফিসের খবর অনুযায়ী,কনকনে ঠান্ডার শৈত্যপ্রবাহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায়। সামান্য তাপমাত্রা বাড়লে ও জাঁকিয়ে শীতের পর্ব চলবে ডিসেম্বরের বাকি কটা দিন। শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা  ২৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি নীচে।  নুন্যতম তাপমাত্রা  ১৩.৭ ডিগ্রি  সেলসিয়াস।  স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি নীচে।    কলকাতার নুন্যতম তাপমাত্রা ১৪.৬ ডিগ্রি  সেলসিয়াস। শহর ও শহরতলিতে, আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ- সর্বাধিক  ৯৭ শতাংশ এবং ন্যুনতম ৩৫ শতাংশ। বুধবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা  ২৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি নীচে।  নুন্যতম তাপমাত্রা  ১৩.৫ ডিগ্রি  সেলসিয়াস।  স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি নীচে।    কলকাতার নুন্যতম তাপমাত্রা ১২.৫ ডিগ্রি  সেলসিয়াস। শহর ও শহরতলিতে, আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ- সর্বাধিক  ৯৮ শতাংশ এবং ন্যুনতম ৫২ শতাংশ।