গরমের শেষ কয়েকদিন স্বস্তি, দাপটে গরমের লু থেকে মুক্তি দিয়ে আবহাওয়া পাল্টে দিয়েছিল যশ। ঘুর্ণিঝড় রাজ্যের বুগে প্রভাব ফেলার আগে থেকেই পাল্টে ছিল আকাশ, গরম উধাও, বৃষ্টি শুরু হয়েছিল জেলায় জেলায়, যার জেরে কমেছিল তাপমাত্রার পারদ। তবে যশ চলে গেলেও কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় কমছে না বৃষ্টিপাত। আবহাওয়া দফতরের রিপোর্ট অনুযায়ী মে মাসে যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে তা বিরল। 

আরও পড়ুন- অমিতাভের পর এবার দ্বিগুণ টাকায় বাংলো কিনে ফেললেন অজয়, কত কোটির টেক্কা 

ফলে বলাই চলে যশের হাত ধরেই রাজ্যে ঢুকছে বর্ষার রেশ। যদিও ভারতের বুকে এখনও প্রবেশ করেনি বর্ষা, তবে দোর গোড়ায় দাঁড়িয়ে প্রহর গুণছে, ঠিক সেই সময়ই নানা ঘুর্ণাবর্ত ও নিম্নচাপ অক্ষরেখার উপস্থিতিতে পাল্টে গিয়েছে রাজ্যের চেনা আবহাওয়া। সোমবার থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত হয়, পাশাপাশি কলকাতাতে এদিন তাপমাত্রা এক ধাক্কায় কমে নেমে আসে ২৫.৫ ডিগ্রিতে। দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৮.১ ডিগ্রি, যা স্বাভাবিকের থেকে ৮ ডিগ্রি কম। তবে রাজ্যের বুকে বর্ষা ঢুকতে এখনও দশদিন, কারণ এখনও পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গে ঢোকেনি বর্ষা। 

তবে তার আগেই রাজ্যে বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাসস অনুযায়ী মঙ্গলবার দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন এলাকাতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত হতে পারে, যার ফলে গরমের প্রভাব ততটা থাকবে না কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকাতে। রাতের তাপমাত্রা নামতে পারে ২৪ ডিগ্রিতে, আগামী কয়েকদিন এমনই থাকবে আবহাওয়া, মাঝে মধ্যেই হালকা ও মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা।