জয়েন্টের প্রশ্নপত্র ইংরেজি, হিন্দির পাশাপাশি গুজরাতিতে শুরু হওয়ায় সরব হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। গতকালই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, গুজরাতির পাশাপাশি জয়েন্টের প্রশ্নপত্র করতে হবে বাংলাতেও। নতুবা এই সিদ্ধান্তের ফলে বঞ্চিত হবে সব আঞ্চলিক ভাষা। মুখ্য়মন্ত্রীর এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতেই শুরু হয়েছে জলঘোলা। কেন ইংরেজি, হিন্দির পাশাপাশি একমাত্র গুজরাতিতেই জয়েন্টের প্রশ্নপত্র হয়েছে, তার সাফাই দিয়েছে খোদ ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করে সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ২০১৩ সালে সব রাজ্য়ের কাছেই জয়েন্ট এন্ট্রান্স এক্সাম মেইন-এর মাধ্য়মে ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। প্রতিটা রাজ্য যাতে এই প্রবেশিকার মাধ্য়মেই পরীক্ষা নেয় তার জন্য চিঠি পাঠানো হয়েছিল সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলোকে। যার মধ্য়ে একমাত্র গুজরাত জেইই (মেইন)-এর মাধ্য়মে রাজ্যে ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানায়। তৎকালীন গুজরাত সরকারের মাধ্য়মে সেকারণে গুজরাতিতে জয়েন্টের প্রশ্নপত্র করার আবেদন জানানো হয়। পরবর্তীকালে ২০১৪ সালে মহারাষ্ট্রও রাজ্যে জয়েন্টের মাধ্য়মেই ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রবেশিকা করার কথা বলে। 

পরে জয়েন্ট কাউন্সিলের কাছে মারাঠি ও উর্দুতে প্রবেশিকার প্রশ্নের আবেদন জানায় মহারাষ্ট্র।  কিন্তু কোনও কারণে ২০১৬সালে গুজরাত , মহারাষ্ট্র দুই রাজ্যই জয়েন্টের মাধ্য়মে ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে। যদিও গুজরাত জয়েন্টের মেইন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র গুজরাতিতে করার আবেদন জানায়। যার ফলে মারাঠি ও উর্দুতে জয়েন্ট্র প্রশ্নপত্র না থাকলেও গুজরাতিতে থেকে যায়। তবে অন্য কোনও রাজ্য জয়েন্ট মেইন-এর প্রশ্নপত্র আঞ্চলিক ভাষায় করার আবেদন জানায়নি।