স্ত্রী চাইলেই জানতে পারেন না স্বামীর রোজগার। তথ্য জানার অধিকারে স্বামীর বেতন জানতে চেয়ে হতাশ হলেন স্ত্রী। তথ্য় কমিশন থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে,জনস্বার্থের প্রশ্ন না থাকলে একজন ব্যক্তির আয় জানতে পারেন না অন্য় কেউ। 

কথায় আছে, মেয়েদের বয়স আর পুরুষের রোজগার জানার অধিকার স্বয়ং ভগবানেরও নেই। শুনতে ইষৎ কটূ লাগলেও এটাই ঘোর বাস্তব। অথচ যাতে ভগবানের অধিকার নেই তাতে উঁকি ঝুঁকি মারতে গিয়েছিলেন এক মহিলা। অগত্য়া যা হওয়ার তাই হল। এ ক্ষেত্রে তথ্য় কমিশনই জানিয়ে দিল, স্বামীর মাস মাইনে জানার অধিকার নেই স্ত্রীর। 

ঘটনার সূত্রপাত , বিবাহ বিচ্ছেদের একটি মামলাকে ঘিরে। স্বামীর কাছে খোড়পোষ দাবি করবেন বলে তার আসল বেতন জানতে চেয়েছিলেন মহিলা। একেবারে তথ্য জানার অধিকার আইনে আয়কর বিভাগের কাছে এই আবেদন জানান। কিন্তু আয়কর বিভাগের তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়,(৮/১/জে) ধারা মেনে কারও ব্যক্তিগত আয়কর সংক্রান্ত নথি আলাদা এক্সেমটেড ইনফরমেশনের মধ্য়ে পড়ে। দ্বিতীয় কোনও ব্যক্তিকে সেই তথ্য দেওয়া যায় না।

আয়কর দফতরের কাছে নিরাশ হয়ে সরাসরি তত্য় কমশিনের কাছে স্বামীর রোজগার জানার আবেদন জানান মহিলা। কিন্তু সেখানে  গিয়েও হতাশ হন তিনি। কমিশন থেকে স্পষ্ট তাকে জানিয়ে দেওয়া হয়, কোনও ব্যক্তির নথি একমাত্র বৃহত্তর জনস্বার্থেই জানানো যেতে পারে। তাছাড়া কেউ চাইলেই সেই নথি পেতে পারেন না। তা  সে যেই হোন না কেন।