নামী ফুড ডেলিভারি অ্যাপে খাবারের অর্ডার দিয়ে ব্যাঙ্ক জালিয়াতির শিকার হলেন এক তরুণী। অভিনব কায়দায় এই প্রতারণার অভিযোগ দায়ের হয়েছে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার নরেন্দ্রপুর থানায়। গড়িয়ার বাসিন্দা ওই তরুণীর অভিযোগ, তাঁর দু'টি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে দশ হাজার টাকারও বেশি খোয়া গিয়েছে। 

প্রতারিত ওই তরুণীর নাম শ্রুতি বিশ্বাস। তিনি গড়িয়ার শ্রীনগর এলাকার বাসিন্দা। অভিযোগ, গত ১৫ অক্টোবর নামী একটি অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপে খাবার অর্ডার করেছিলেন ওই তরুণী। অনলাইন পেমেন্টের মাধ্যমেই খাবারের দাম মিটিয়েছিলেন তিনি।  কিন্তু সেই খাবার তাঁকে ডেলিভারি করা হয়নি। এর পরে সংস্থার কাস্টমার কেয়ার বিভাগে যোগাযোগ করলে তাঁকে জানানো হয়, খাবার দাম বাবদ দেওয়া টাকা তাঁকে ফেরত দেওয়া হবে না। 

আরও পড়ুন- অনলাইনে খাবার অর্ডার করে কীভাবে প্রতারিত গড়িয়ার এই তরুণী, দেখুন ভিডিও

ওই তরুণীর দাবি, পরের দিন ক্রেতা সুরক্ষা দফতরে একটি অভিযোগ জানান তিনি। কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁকে এক ব্যক্তি ফোন করেন বলে জানান ওই তরুণী। ওই ব্যক্তি নিজেকে ফুড ডেলিভারি অ্যাপ সংস্থার প্রতিনিধি বলে পরিচয় দেন। খাবারের দাম বাবদ দেওয়া টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি এর পরে তরণীকে অনলাইনেই একটি ফর্ম ভর্তি করে দেওয়ার জন্য পাঠায় ওই ব্যক্তি। তরুণীর দাবি, ওই ফর্মে অনলাইন ফুড ডেলিভারি সংস্থার নাম লেখা ছিল। কিন্তু সেখানে তাঁর ইউপিআই পিন নম্বর লিখতে বলায় প্রথমে আপত্তি জানান ওই তরুণী। অভিযোগ, তখন তাঁকে বলা হয়, পিন নম্বর লিখে দিলেও অন্য কেউ সেটি দেখতে পাবে না। 

তরুণীর দাবি, তিনি যে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা ফেরত চেয়েছিলেন, সেখানে টাকা ফেরত দেওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি করে এর পরে সুকৌশলে তাঁর থেকে আরও একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য জেনে নেয় প্রতারকরা। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই দু'টি ব্যাঙ্ক থেকে ৮৪০০ এবং ১৯০০ টাকা সরিয়ে নেওয়া হয়। সবমিলিয়ে ১০,৩০০ টাকা খোয়া যায় ওই তরুণীর। 

শ্রুতি বিশ্বাস নামে ওই তরুণী ইতিমধ্যেই নরেন্দ্রপুর থানায় অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপ সংস্থাটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই বিষয়ে অভিযুক্ত ফুড ডেলিভারি অ্যাপ সংস্থার কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া সম্ভব হয়নি।