অফিসে যাবেন বলে বাসে ওঠেছিলেন। কিন্তু চলন্ত বাসে যে এমন ঘটনা ঘটবে, তা কে জানত!পার্কস্ট্রিটে ভিড়ে ঠাসা বাসে শ্লীলতাহানির শিকার হলেন এক যুবতী। ঘটনার পর থেকে বাস থেকে নেমে কেঁদে ফেলেন তিনি।  অভিযুক্তকে হাতনাতে ধরে ফেলেন কর্তব্যরত ট্রাফিক সার্জেন্ট। থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতা।

অন্যন্যদিনের মতোই শনিবারও অফিস যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন বছর আঠাশের এক তরুণী। হাওড়া থেকে পার্কস্ট্রিটগামী একটি বেসরকারি বাসে ওঠেছিলেন তিনি। ওই তরুণীর অভিযোগ, পার্কস্ট্রিট ক্রসিং-এর কাছে বাস থেকে নামার সময়ে তাঁর শ্লীলতাহানি করে বছর বাহান্ন-এর ব্যক্তি, অশালীন আচরণ করে সে। ঘটনার পর নির্যাতিতার সঙ্গে অভিযুক্তও বাস থেকে নেমে পড়ে বলে জানা দিয়েছে। এদিকে তরুণীর রাস্তার মাঝে কাঁদতে দেখে সন্দেহ হয় কর্তব্যরত ট্রাফিক সার্জেন্টে। সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় পার্কস্ট্রিট থানায়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ।  প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে পালানোর চেষ্টা করেছিল অভিযুক্ত। কিন্তু লাভ হয়নি, ট্রাফিক সার্জেন্ট ও পার্কস্ট্রিট থানার পুলিশের তৎপরতায় ধরা পড়ে সে। অভিযুক্ত নিয়ে যাওয়া হয় পার্কস্ট্রিট থানায়। পুলিশ সূত্রে খবর,  অভিযুক্তের নাম জয়চাঁদ মণ্ডল। বাড়ি হুগলির হিন্দমোটরে। জয়চাঁদের বিরুদ্ধে পার্কস্ট্রিট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। নির্যাতিতা তরুণীর বয়ানও রেকর্ড করেছেন তদন্তকারীরা। 

আরও পড়ুন: শহরে উদ্ধার বিপুল পরিমাণে জাল নোট ও বিদেশি মুদ্রা, গ্রেফতার ২

দিন চারেক আগে, বর্ষবরণের রাতে এই পার্কস্ট্রিট চত্বরেই মানুষের ঢল নেমেছিল। তখন মহিলাদের মহিলাদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে নামানো হয়েছিল  কলকাতার পুলিশের বিশেষ টিমকে। তেমন কোনও অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেনি। কিন্তু নতুন বছরের শুরুতেই পার্কস্ট্রিটে শ্লীলতাহানির শিকার হতে হল এক তরুণীকে।  আতঙ্কে নির্যাতিতা, চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।