শীতের সকালে সানগ্লাস পরার মজাই কিছু আলাদা। তবে সবাই যে ফ্য়াশনের জন্য় সানগ্লাস পরে তা কিন্তু নয়। এছাড়াও সাইকেল বা মোটরসাইকেল চালানোর সময় অনেকেই সানগ্লাস পরেন।  কারণ, সাইকেল ও মোটরসাইকেল চলন্ত অবস্থায় বাতাসের ধুলোবালি এবং পোকা-মাকর আমাদের চোখে এসে পড়তে পারে। এ ছাড়াও সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি  চোখের কর্নিয়ার ও রেটিনার মারাত্মক ক্ষতি করে। আর সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির কুপ্রভাব থেকে চোখ বাঁচাতে সাহায্য করে এই সানগ্লাস। তাই সানগ্লাস শুধুমাত্র স্টাইলের জন্য নয়, চোখের সুরক্ষায়ও খুবই জরুরি। 

আরও পড়ুন, বর্ষের শুরুতেই সম্পর্কের সংকল্প, গুছিয়ে নিন অগোছালো জীবন

চোখের আরাম বা স্টাইল করতে গিয়ে সস্তার সানগ্লাস ব্যবহার করে বিপদ ডেকে আনছেন অনেক মানুষই। এর অন্য়তম কারণ, সস্তার সানগ্লাসে নিম্ন মানের প্লাস্টিক ব্যবহৃত হয়। আর নিম্ন মানের রঙিন প্লাস্টিকে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি আটকানোর কোনও ক্ষমতা নেই। চোখের জন্য এটা খুবই ক্ষতিকর। রোদের থেকে চোখ বাঁচাতে গিয়ে  অজান্তেই উল্টে চোখের বিপদ ডেকে আনছেন বহুমানুষ। 

আরও পড়ুন, নতুন বছর মানেই নিউ ইয়ার রেজোলিউশন, রইল বিশেষ তালিকা

সস্তার রঙিন চশমা অতিরিক্ত ব্য়বহারের ফলে, রিফ্র্য়াকটিভ এরর বা চোখের প্রতিসারক ত্রুটি অনেকগুনে বেড়ে যায়। অক্ষিগোলকের অস্বাভাবিক আকার ও বক্রতার জন্য় প্রতিসারক ত্রুটির ফলে দৃষ্টিশক্তি কমে আসতে পারে। এছাড়া রঙিন চশমা অতিরিক্ত ব্য়বহারের ফলে, আইলিড ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও তৈরি হয়। তাই সানগ্লাস কেনার ক্ষেত্রেও  চিকিত্সকের পরামর্শ নিলে খুব ভাল হয়। আর তাই সস্তার সানগ্লাস কেনা বা ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। শীতের সময়ে রোদের বিড়ম্বনা না থাকলেও মিঠে আলোও কিন্তু সানগ্লাস ভেদ করে চোখের উপর সমস্য়া সৃষ্টি করে। কারণ বিকৃত কোন সৃষ্টি করে।