নতুন বছর মানেই পুরোনোকে ভুলে নতুন ভাবে সব কিছু শুরু করা। নতুন বছর মানেই নিউ ইয়ার রেজোলিউশন, আবার নতুন বছর মানেই সবকিছুকে নতুন ভাবে গ্রহণ করা। পুরোনো সমস্ত বিবাদ ভুলে নতুনকে স্বাগত জানানো। নতুন বছরে  জীবনে বিশেষ কিছু পরিবর্তনের দরকার হয়,তাতে সারাবছর জীবনটা ভাল ভাবে কাটে। এমন কিছু রেজোলিউশন প্রত্যেকেরই দরকার, যাতে সবারই ভাল হয়। নতুন বছর শুরু করার আগে দেখে নিন কিছু নিউ ইয়ার রেজোলিউশন।

আরও পড়ুন-বর্ষবরণের পার্টিতে মাতুক ছোটরাও, রইল হুল্লোড় পার্টির বিশেষ কিছু টিপস...


গত বছর যা যা রেজোলিউশন নিয়েছিলেন তা হয়তো মাঝপথেই ছেড়ে দিয়েছেন, সেই বাকি থাকা কাজটি সবার আগে সম্পূর্ণ করুন। তাহলে সবার প্রথমে অর্ধসমাপ্ত কাজটি সম্পূর্ণ করুন।

নতুন বছরে স্বপ্নের জগত থেকে বেরিয়ে বাস্তব নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করুন। যা সত্যিই আপনার জীবনে পরিবর্তন আনবে।

সবাইকে ভাল রাখার মানসিকতা নিয়ে চলুন। সবার খেয়াল রাখুন, সবাইকে ভালবাসেন। তাহলেই আমি ভাল থাকবেন।

কয়েক মাস যাবার পরই মাঝপথে খতিয়ে দেখুন বছরের শুরুতে যা যা রেজোলিউশন শুরু করেছিলেন কতদূর মেনে চলেছেন এবং তার মধ্যে আর কী কী কাজ বাকী থেকে গেল।

সবসময় মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করার চেষ্টা করুন। রাগের বশে মুখে যা আসবে তা বলে দেওয়াটা কোনও বড় কাজ নয়, বরং সকলের সঙ্গে ভাল ব্যবহার করেও নিজের মনের কথা বুঝিয়ে দিতে পারেন।

বাড়িতে থাকলে বাড়ির কাজে সাহায্য করুনয সকলে মিলে একসঙ্গে কাজ করলে কাজও তাড়াতাড়ি মিটে যাবে। আর আপনিও ভাল থাকবেন।

সকালে ঘুম থেকে উঠে নিজের দুই হাতের তালু ঘষে নিয়ে চোখের মধ্যে চেপে রাখুন।

যাদের সাহায্যের প্রয়োজন তাদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন।

যাদের নীতিগত চরিত্র ঠিক নয়, তাদের থেকে দূরে থাকুন। এই ধরণের মানুষদের থেকে যতটা পারবেন দূরে থাকুন।

আরও পড়ুন-বর্ষবরণ রাতের পার্টি উঠুক জমে, হ্যাঙ্গওভার কাটান সহজ উপায়ে...

নিজেকে ভাল রাখতে গেল সবার আগে নিজে সুস্থ থাকুন। আর নিজে সুস্থ থাকতে গেলে নিজেকে ফিট রাখুন। আর ফিট রাখতে গেলে প্রতিদিনের তালিকায় ওয়ার্কআউট মাস্ট।

সময়ের কাজ সময়ে শেষ করুন। একসঙ্গে সব কাজ ফেলে রাখবেন না।

নেগেটিভ চিন্তাভাবনা দূরে রাখুন। চিন্তাভাবনা নেগেটিভ হলেই তার খারাপ প্রভাব পড়বে জীবনের উপর।

মিথ্যে কথা বলা ত্যাগ করুন। নিজের প্রতি সৎ ও বিশ্বাসী থাকুন।

নিজের জীবনে যেটা সঠিক মনে হবে সেটাই মেনে চলুন। অন্যের বুদ্ধিতে কোনওকিছু করতে যাবেন না, এতে আপনি নিজেই বিপদে পড়বেন।

কেরিয়ার তো রয়েইছে তবে কেরিয়ারের পাশাপাশি পরিবারকেও সমান ভাবে গুরুত্ব দিন। নতুন বছরে পরিবারের সঙ্গে যতটা পারবেন সময় কাটান।