যে কোনও রকমের খাবারেই স্বাদ বাড়াতে তেজপাতার জুড়ি মেলা ভার। তবে শুধু খাবার নয় শরীর স্বাস্থ্য ভালো রাখার পক্ষে ও তেজপাতার যে বহু গুণাগুণ আছে তা অনেকেরই জানা। কখনও তেজপাতার চা দিয়ে খেলে গলা ভালো থাকে।  বা তেজপাতা জলে ফুটিয়ে সেই জল দিয়ে মুখ ধুলে ত্বক হয় মোলায়েম। কিন্তু এছাড়াও তেজপাতা পুড়িয়েও পাওয়া যায় বেশ কিছু উপকার। 

এক হেলথ ওয়েবসাইট থেকে এমনই জানা গিয়েছে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন তেজপাতা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিশেষ উপকার পাওয়া যায়। একটি ছাইদানিতে তেজপাতা রেখে ১০ মিনিট ধরে পোড়াতে হবে। এর সঙ্গেই কিন্তু পুড়বে এর তৈল ও উপাদান। তেজপাতা পোড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে দেখবেন ঘরে সুগন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে। এই ভেষজ গন্ধ স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই উপকারী। 

মন সতেজ রাখতে এবং শরীরকে প্রশমিত করতে সাহায্য করে এই পোড়া গন্ধ। অবসাদ, উদ্বেগ বা কোনও মানসিক চাপ থাকলেও এই প্রক্রিয়া প্রয়োগ করে দেখতে পারেন। তেজ পাতার মধ্যে রয়েছে পিনেনে ও শাইনি অল নামে দুটি উপাদান এছাড়াও রয়েছে সাইকো অ্যাক্ট্রেস পদার্থ। তেজপাতা সিডেটিভ জীবানুনাশক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান হিসেবে কাজ করে। 

তেজপাতা পুড়িয়ে সেই ধোঁয়া ঘরে ছড়ালেও জীবানু নাশ হয়। ফলে সহজেই ফ্লু ছড়িয়ে পড়তে পারে না বা জীবাণু সংক্রমণ করতে পারে না। তেজপাতার থেকে নিঃসৃত তেল দিয়ে মাথায় মালিশ করলে উপশম পাওয়া যায়। 

প্রাচীন আয়ুর্বেদে তেজপাতা মহৌষধের মতন কাজ করতো। ইউরোপীয় বিভিন্ন শাস্ত্রে বলা হয়েছে প্রাচীন গ্রীক ও রোমানরা তেজপাতাকে ওষুধের মতন ব্যবহার করত।