রোবের্তো দে হেসুস এস্কোবার গাভিরিয়া কে চেনেন? তাঁর অনেক পরিচয়ের মধ্যে একটি হল তিনি পাবলো এস্কোবারের ভাই। পাবলো এস্কোবারকে  কে না চেনে? পাবলো পৃথিবীর নামকরা মাদকপাচারকারী, যাকে বলা হয়ে থাকে ড্রাগ লর্ড। 'মেদেইন কার্তেল'-এর একমাত্র অধীশ্বর ছিলেন তিনি।  এই হেন কিং পিনের ভাই রোবের্তো আবার সংবাদ  শিরোনামে, কারণ, 'এস্কোবার ইঙ্ক' বানিয়ে ফেলেছে স্যামসাঙ গ্যালাক্সি  ফোল্ড -এর ক্লোন কপি। যে ফোনের নাম অনেকে দিয়েছেন এস্কোবার ফোল্ড ২।  গ্যালাক্সি ফোল্ড-এর মতোই এই ফোনের ডিজাইন। এবং আরও অন্যান্য ফিচার এই ফোনে আছে যার সঙ্গে গ্যালাক্সি ফোল্ডের সাদৃশ্য আছে। যারা স্যামসাঙ গ্যালাক্সি ফোল্ড কিনতে সক্ষম নন তারা কি ভরসা করে এই ফোন কিনবেন? আমরা কি  ভরসা করতে পারি এ হেন নির্মাতা এবং বিক্রেতাকে? প্রসঙ্গত, রোবের্তো ছিলেন 'মেদেইন কারতেল'-এর সহ প্রতিষ্ঠাতা এবং হিসাব রক্ষক। 

স্যামসাঙ গ্যালাক্সি ফোল্ড ফোনটির হুবহু নকল করে তৈরি করা হয়েছে এস্কোবার ফোল্ড ২ ।  গ্যালাক্সি ফোল্ড ২ ফোনের মতোই এটিতেও থাকবে ৫টি ক্যামেরা। ফোনের আদল একরকম হলেও কিছুটা চমক দেওয়ার জন্যই মনে হয় রঙের ক্ষেত্রে গোল্ড বা সোনালি রঙের ব্যবহার করা হয়েছে নকলটিতে। সঙ্গে আছে এক্সোবার ইঙ্ক-এর ব্র্যান্ডিং। গাভিরিয়া প্রেস মিট-এ  জানিয়েছেন যে এই ফোনের কিছু পার্টস চিন থেকে আমদানি করা হয়েছে। গাভিরিয়ার উদ্দেশ্য হল এলেক্ট্রিকাল ডিভাইসের কিং পিন হওয়া। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন  যে দাম কমিয়ে, ক্রেতাকে সরাসরি ছাড় দিয়ে এস্কোবার ব্র্যান্ডকে তিনি প্রতিষ্ঠিত করতে চান। স্যামসাং-এর সঙ্গে সম্মুখ সমরে যেতে এক পা পিছপা নন বোবের্তো গাভিরিয়া।  'রেস্ট ইন পিস স্যামসাঙ' নামে প্রচারমূলক ভিডিও তৈরি করে তিনি ইউটিউবে তা প্রকাশ করতে চান। স্যামসাং-কে সমূলে উৎখাত করাই নাকি গাভিরিয়ার লক্ষ্য।

একটি বিশেষ ডোমেন রিপস্যামসাংডটকম তৈরি করা হয়েছে যার দ্বারা ফোল্ড ২ ফোনের প্রিঅর্ডার পাতাটি খোলা যাচ্ছে।সেখানে এই ফোনটির দাম দেখানো হয়েছে ৩৯৯ ডলার অর্থাৎ ২৮,৪০০ টাকা।  বোঝাই যাচ্ছে এই ফোনের দাম স্যামসাঙ গ্যালাক্সি ফোল্ড-এর থেকে অনেক কম। গ্যালাক্সি ফোল্ডের দাম ভারতে ১,৬৪,৯৯৯ টাকা (১,৯৮০ ডলার)। দামের এতটা ফারাক দেখে মনে ধন্দ জাগেই ফোল্ড ২ ফোন কতখানি নিখাদ! অ্যান্ড্রয়েড পুলিশের ধারণা, এই ফোন গ্যালাক্সি ফোল্ড ফোনের চাইনিজ ক্লোন যা চিনের ই-কমার্স স্টোরে বিক্রি হচ্ছে ৪৩৫.৮৫ ডলারে, ভারতীয় টাকায় যার দাম ৩১,০০০টাকার কাছাকাছি।  

মনে রাখতে হবে এই প্রথমবার নয় এস্কোবার ইঙ্ক নামি জনপ্রিয় ফোনের নকল ভার্সান এর আগেও বের করেছে। গত বছরে এই কোম্পানি বাজারে নিয়ে এসেছিল ফোল্ড ১ যা প্রথম ফোল্ডেবল স্মার্ট ফোন যা আসলে ছিল রোয়্যাল ফ্লেক্সপাই ফোনের রিব্র্যান্ডেড ভার্সান যার আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল ২০১৮ সালে। এইসব ক্লোন মডেল যেগুলো এস্কোবার ইঙ্ক নিয়ে আসে বাজারে সেগুলো কখনই আসল মডেলের সমকক্ষ হতে পারে না। তাছাড়া, আনুষ্ঠানিকভাবে যা যা ফিচারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে সেগুলো এই ক্লোন ফোনগুলোয় আদপে অন্তর্ভুক্ত করা হবে তো?