বেসরকারিকরণের দিকে আরও একধাপ এগিয়েছে ভারতীয় রেল। আবারও প্রকাশ্যে এসেছে রেলের বেসরকারিকরণের বিষয়। ভারতীয় রেল মন্ত্রক এবারে শতাধিক রুটের ট্রেন বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দিতে ইচ্ছে প্রকাশ করেছে। বুধবারে বেসরকারি সংস্থাগুলিকে ভারতীয় রেল মন্ত্রকের তরফ থেকে এমনই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বেসরকারি লগ্নিতে ট্রেন চালানোর প্রয়াস দেশে এই প্রথম। এই নতুন প্রয়াসের ফলে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, কর্মসংস্থান, নিরাপত্তা বৃদ্ধির লক্ষ্য পূর্ণ করতে সক্ষম হবে বলে আশাবাদী ভারতীয় রেল।

 জানা গিয়েছে, ১০৯ টি রুটের মোট ১৫১ টি আধুনিক ট্রেন আপাতত এই বেসরকারিকরণের আওতায় থাকবে।  পুরো দেশের রেল নেটওয়ার্ক ১২ টি ক্লাস্টারে বিভক্ত এবং প্রাইভেট ট্রেনগুলি এগুলিতে চলবে। এই উদ্যোগের উদ্দেশ্য রেলের আধুনিকিকরণ।  রেল রক্ষণাবেক্ষণের বোঝা কমাতে সাহায্য করবে এই প্রয়াস। এই নতুন ১৫১টি অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ট্রেনে থাকবে ১৬টি কামরা। এই রেল এর সর্বোচ্চ গতি থাকবে ঘন্টায় ১৬০কিমি।

সমস্ত ট্রেন, মেক ইন ইন্ডিয়ার অধীনে ভারতে তৈরি করা হবে। যে সংস্থাগুলি সুযোগ পাবে তাদের অর্থায়ন, সংগ্রহ, পরিচালনা এবং রক্ষণাবেক্ষণ পরিচালনা করতে হবে। এই প্রকল্পের ছাড়ের সময়সীমা ৩৫ বছর হবে। বেসরকারী সংস্থা এই ট্রেনগুলির রোলিং স্টক কিনবে। রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে, রেলপথ কেবল চালক এবং গার্ড সরবরাহ করবে। প্রাথমিকভাবে, এই কাজের জন্য বেসরকারী খাতের বিনিয়োগের মাত্রা রাখা হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা।