কথায় বলে ধৈর্য ধরে কোনও কাজ করলে তবেই তাতে সফল হওয়া যায়। তাই সহজেই হতাশ ও ধৈর্য না হারিয়ে ফেলে বাড়িয়ে তুলুন ধৈর্যশক্তি। আশেপাশের যে কোনও ব্যক্তিত্বের তুলনায় একজন ধৈর্যশীল ব্যক্তি হন সবথেকে আলাদা পরিচিতি লাভ করে। তাই নিজেকে আলাদা ভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে বা  জীবনে সুপ্রতিষ্ঠিত হতে বারিয়ে তুলুন ধৈর্য ক্ষমতা। একজন ব্যক্তির চরিত্রে সবথেকে উন্নত দিকগুলি হল ধৈর্য ও সহিষ্ণুতা। আজ সারা বিশ্ব জুড়ে পালিত হচ্ছে 'ওয়ার্ল্ড টলারেন্স ডে'। প্রতি বছর ইউনেস্কোর উদ্যোগে ১৬ নভেম্বর বিশ্ব জুড়ে পালিত হয় বিশ্ব সহিষ্ণুতা দিবস। তাই নিজের ধৈর্য আরও একটু বাড়িয়ে নিতে চলুন জেনে নিন এই ছোট্ট নিয়মগুলি। 

আরও পড়ুন- চুল শুকোতে প্রতিদিন ড্রায়ার তো ব্যবহার করেন, এর ক্ষতিকর দিকগুলো জানেন কি

একজন ধৈর্যশীল ব্যক্তিত্ব হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলার জন্য প্রথমেই অস্থিরতা পরিহার করতে হবে। এই অস্থিরতাই হচ্ছে ধৈর্য চ্যুতির প্রধান শত্রু। তাই প্রথমেই অস্থিরতা পরিহার করুন। তবে এই স্বভাব আপনি রাতারাতি পরিবর্তন করতে পারবেন না। এই জন্য নিজের প্রতি রাখতে হবে কঠোর সংযম। এই জন্য নিয়মিত মেডিটেশন করুন। প্রতিদিন মেডিটেশন করলে ধীরে ধীরে অস্থিরতা কাটিয়ে হয়ে উঠতে পারবে ধৈর্যশীল। 

আরও পড়ুন- দূষণ থেকে বাঁচতে, হুক্কা নয় নয়া দিল্লিতে ভীড় জমছে অক্সিজেন বার-এ

আমাদের পরিচিতের তালিকায় বা কর্মস্থানে এমন প্রচুর মানুষ আছেন যারা খুব শীগ্রই নিজেদের ধৈর্য হারিয়ে চিৎকার চেঁচামেচি করে ফেলেন। বা তিরষ্কার করাটাই তাঁদের স্বভাব। সেই সমস্ত মানুষগুলোর সঙ্গে যখন আপনাকে সময় কাটাতে হয় তাই তিরষ্কার শোনার জন্য নিজেকে মানসিক ভাবে প্রস্তুত করুন। যদি সম্ভব হয়, সে ক্ষেত্রে এই ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে কথা বলুন, যাতে তাঁরাও নিজেদের ধৈর্য সহজে হারিয়ে না ফেলেন।

আরও পড়ুন- মুখের দাগ ছোপ নিয়ে চিন্তিত, মেনে চলুন অব্যর্থ এই ঘরোয়া টোটকা

আরও একটি বড় বিষয় হল, একজন ধৈর্যশীল ব্যক্তিত্ব হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে গেলে সব পরিস্থিতিতে চিন্তা করতে শিখুন। পরিস্থিতি যতই খারাপ হোক না কেন,  ঠান্ডা মাথায় সব বিষয়ে চিন্তা করার ক্ষমতা নিজের মধ্যে গড়ে তুলুন। সেই সঙ্গে রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে শিখুন, নিজের প্রতি ভরসা রাখুন এবং খিটখিটে স্বভাব পরিহার করুন। পছন্দের গান শুনুন। মিউজিক থেরাপির ধৈর্য ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।