ব্রাজিলের রাজধানী রিও ডি জেনেইরোতে প্রতি বছর এই কার্নিভাল-এর আয়োজন করা হয়। এবার ১৩ টি সাম্বা স্কুল বিভিন্ন বিষয়ে তাদের ঝকঝকে প্রদর্শন দেখিয়েছে এই কার্নিভালে। প্রতি বছর সারা বিশ্বের নজর থাকে ব্রাজিলের এই কার্নিভালে। ব্রাজিলে অনুষ্টিত এই কার্নিভাল দেখতে সারা বিশ্ব থেকে প্রতি বছর প্রচুর পর্যটক এসে উপস্থিত হন। 

আরও পড়ুন- হাজার চেষ্টা করেও রোখা গেল না, এবার আমেরিকাতেও খোঁজ মিলল করোনা আক্রান্তের

আরও পড়ুন- মাতৃত্ব থেকে রাজপাটের দায়িত্ব, একা হাতেই সামলান এই রাজকন্যা

 ১৭২৩ সালে সর্বপ্রথম রিও দি জেনেরিওতে এ উৎসব উদযাপিত হয়েছিল। এই কার্নিভালে নানান সাজে সেজে প্রচুর প্রতিযোগীরা অংশগ্রহণ করেন। ঐতিহাসিক, সামাজিক ও ধর্মীয় প্রেক্ষাপটে বিশ্বের অত্যন্ত জনপ্রিয় এই কার্নিভাল এক উৎসবরূপে পরিচিত। ফেব্রুয়ারি, ১৭২৩ থেকে ধারাবাহিকভাবে পাঁচদিনব্যাপী ব্রাজিলে রিও উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। সাংবার্ষিকভিত্তিতে লেন্টের পূর্ব অনুষ্ঠিত এই উৎসবে প্রতিদিন ২০ লক্ষেরও অধিক মানুষ এতে অংশগ্রহণ করেন।

তবে এই বছরের ব্রাজিলের কার্নিভালে ছিল এক নতুন চকম। এই বছরে ব্রাজিলের পেরোলা নেগ্রা স্পেশাল গ্রুপ সালগুরিও স্কুলের তরফ থেকে সিদ্ধিদাতা গণেশের এক বিশেষ ট্যাবলো কার্নিভালে প্রদর্শন করা হয়েছিল, যা সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। এছাড়া এই প্রদর্শনীতে ছিল মহাভারতের সমস্ত উল্লেখযোগ্য চরিত্রের মূর্তিও। এই কার্নিভালে অংশগ্রহণকারী প্রতিটি গ্রুপ তাঁদের চমক প্রদর্শনের জন্য ১ ঘন্টা করে সময় পায়।