একাগ্র মনে চিন্তার নাম ধ্য়ান। অর্থাৎ একভাবে কোনও চিন্তা করাই হল  ধ্য়ান। এই চিন্তা  তিনরকমের হয়। সুচিন্তা অর্থাৎ পজিটিভ থিংকিং। দুশ্চিন্তা হল উৎকণ্ঠা বা উদ্বেগ। কুচিন্তা অর্থাৎ অন্য়ের ক্ষতি করার চিন্তা।

ধ্য়ানের চিন্তা হল সুচিন্তা।  ভাল চিন্তা, সৎ চিন্তা, সৎ উদ্দেশ্য় আর তার বিনিময়ে কৃতকার্য  হওয়ার পদ্ধতি হল ধ্য়ান।

কনসেনট্রেশন বা মনঃসংযোগের পরিণত রূপই হল ধ্য়ান বা মেডিটেশন। ঋষি পতঞ্জলীর মতে কোনও বস্তু একভাবে প্রবাহিত হলে তাকে ধ্য়ান বলে। স্বামী বিবেকানন্দের  মতে, বহু বৃত্তির নাশ হয়ে একটি মাত্র বৃত্তি অবশিষ্ট থাকলে তাকে ধ্য়ান বলে।

ধ্য়ান বা মেডিটেশনকে এক কথায় বলা যেতে পারে, আর্ট অব প্রিজার্ভিং ইউথ বা তারুণ্য়কে ধরে রাখার শিল্প। ধ্য়ানের মাধ্য়মে চিন্তাশক্তির প্রখরতা বাড়ে। মন স্থির হয়। মনের চঞ্চলতা দূর হয়। উৎকণ্ঠা, উদ্বেগ, রাগ, হিংসা দ্বেষ সব সরে গিয়ে মনে প্রশান্তি আসে। আজকের স্ট্রেসফুল যুগে মানুষকে উৎকণ্ঠা এবং অত্য়ধিক চাপ কমাতে সাহায্য় করে ধ্য়ান বা মেডিটেশন।

শুধু মনই নয়। শরীরের ওপরেও ধ্য়ানের প্রভাব অপরিসীম। সামগ্রিকভাবে কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের ওপর প্রভাব বিস্তার করে দেহকে সুনিয়ন্ত্রিত রাখে ধ্য়ান। শরীরের বিভিন্ন গ্ল্য়ান্ড বা গ্রন্থিগুলোর ওপর প্রভাব বিস্তার করে হরমোন ক্ষরণে সহায়তা করে। ফলে দেহ সতেজ ও চাঙ্গা থাকে। তাই নিজেকে শারীরিকভাবে সুস্থ রাখার এক গোপন কৌশল হল এই মেডিটেশন।

ধ্য়ান করা খুব কঠিন কিন্তু নয়। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়ে, পদ্মাসনে বা অন্য় যে কোনও ধ্য়ানাসনের ভঙ্গিমায় বসতে হবে। মেরুদণ্ড সোজা থাকবে। বিশেষ করে বুক, গলা আর মাথা। যাঁরা শারীরিক অসুবিধের কারণে বসে ধ্য়ান করতে পারেন না, তাঁরা চাইলে শুয়েও ধ্য়ান করতে পারেন। বলে রাখা ভাল, পোশাক শুধু পরিষ্কার হলেই চলবে না, যে পোশাকে আপনি স্বচ্ছন্দ বোধ করবেন, সেই পোশাক পরেই আপনাকে ধ্য়ান করতে হবে। ধূপ জ্বালিয়ে, পরিচ্ছন্নতা বজায় রেখে ধ্য়ানের জন্য় সামনে একটি মূর্তি বা মোমবাতিজাতীয়  কিছু  প্রতীক রাখার দরকার হয় প্রথম-প্রথম।  একবার অভ্য়েস করে ফেলতে পারলে, পরে আর এই ধরনের বাহ্য়িক কোনও কিছুর প্রয়োজন হয় না।

ধ্য়ান আর প্রাণায়মের মধ্য়ে যোগ রয়েছে নিবিড়।  প্রাণের আরামই হল প্রাণায়াম। প্রাণায়াম হল শ্বাস-প্রশ্বাসের মনঃসংযোগ। শ্বাসের দিকে মন দিলেই ধ্য়ান করা হয়ে যায়। আপনি ঈশ্বরে বিশ্বাস করুন বা না করুন, ধ্য়ান করতে কিন্তু কোনও বাধা নেই। আজকের স্ট্রেস জর্জরিত ক্ষতবিক্ষত জীবন থেকে   মু্ক্তি পেতে ধ্য়ান বা মেডিটেশনের সত্য়িই কোনও বিকল্প নেই।