পাঁচ বছরের মধ্যে ওয়ানপ্লাস একটি স্মার্টফোন নির্মাতা থেকে পৌঁছে গেছে টেলিভিশন নির্মাণের জগতে। গতবছর সেপ্টেম্বর মাসে লঞ্চ হয়েছিল ওয়ানপ্লাসের দুটি টিভি- কিউ১ (৬৯,৯০০) এবং কিউ১ প্রো (৯৯,৯০০)। ওয়ানপ্লাসের মোবাইল যেমন চূড়ান্ত সফল হয়েছিল তেমন সফল টেলিভিশন সেটগুলি হতে পারবে কি না সেটাই প্রশ্ন। কারণ, ওয়ানপ্লাসের টিভি নিয়ে সমস্যা ছিল।  বাগি সফটওয়্যার, রিমোটে কার্যকরী বটনের অভাব, এইচডিআর ১০-এর পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো ছিল না।  
নতুন করে আপডেট করা হয়েছে কিউ ১ ও কিউ ১ প্রো। নতুন হার্ডওয়্যার যোগ করা হয়েছে, নতুন রিমোট সঙ্গে নতুন কার্যকরী বটন তৈরি হয়েছে। তাই এই পরিমার্জিত ওয়ানপ্লাস টিভির পারফরম্যান্স আগের থেকে ভালো হল না কি আগের মতোই রইল তা দেখে নেওয়া যাক-

তিনটি প্রধান সফটওয়্যার আপডেট হয়েছে এই টিভিতে আর মনে করা হচ্ছে সেগুলো সবগুলোই এই টিভিকে সমস্যামুক্ত করেছে। এই নতুন সফটওয়্যারে ফলে সেটগুলি বাগ ফ্রি হয়েছে, নেটফ্লিক্স সাপোর্ট পাওয়া যাচ্ছে এবং আরো নতুন নতুন কনটেন্ট পার্টনার যুক্ত হয়েছে।

নেটফ্লিক্স ও স্পটিফাই যুক্ত হওয়ার ফলে সামগ্রিক অভিজ্ঞতা যা অন্ড্রয়েড টিভি থেকে পাওয়া যায় তেমন কনটেন্ট উপভোগ করার অভিজ্ঞতা অনেকটাই উন্নতমানের হয়েছে ওয়ানপ্লাসের টিভিগুলোতে।  ডলবি ভিশন, ডলবি  অ্যাট্মস প্রয়োজন অনুযায়ী কার্যকরী হচ্ছে, এবং অভিজ্ঞতা অবশ্যই ভীষণ ভালো।  সামগ্রিক ভাবে দেখতে হলে বাগ- সমস্যা অনেকটাই কম। স্পটিফাই থেকে গান শোনার অভিজ্ঞতাও ক্রেতাদের কাছে ত্রুটিহীন বলেই মনে হবে, কারণ, ওয়ানপ্লাস টিভি কিউ ১ প্রো-এর নতুন বিল্ট-ইন সাউন্ডবার বেশ ভালো।  ওয়্যারলেস স্পিকারের মতো এই টিভির শব্দের মান এখন অনেকখানি পরিণত। 
  
রিমোটের পরিবর্তন এই নির্মাতাদের অন্যতম কৃতিত্ব।  ওয়ানপ্লাস টিভির আগের রিমোট নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছিল। পুরনো রিমোট বাতিল করে নতুন রিমোট নিয়ে এসেছে ওয়ানপ্লাস। নাম দিয়েছে 'নেটফ্লিক্স' রিমোট। আগের রিমোটটি ছিল অ্যালুমিনিয়ামের। নতুনটি প্লাস্টিকের। আগে লিথিয়াম-ইয়ন ব্যাটারি ছিল এখন রেগুলার এএএ ব্যাটারি দিয়েই চলবে নতুন রিমোটটি। নতুন বটন লে আউট এখন অনেকবেশি কার্যকরী। নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম ভিডিও, ইউ টিউবের নামে নামে বটন আছে। একটি সোর্স সিলেক্টর বটন ও ভল্যুম মিউট বটন আছে। দেখনদারিতে হয়তো সাঙ্ঘাতিক প্রিমিয়াম লুক নয় কিন্তু এই রিমোট কাজের, ব্যবহারে সুবিধাজনক এবং উপযোগী। নতুন যে সেটগুলো ক্রেতারা কিনবেন তার সঙ্গেই এই রিমোট থাকবে।  আগে যারা ওয়ানপ্লাস টিভি কিনেছিলেন তারা এই রিমোট বিনামূল্যে পাবেন।

এই টিভির পিকচার কোয়ালিটি অর্থাৎ ছবির মান আগের থেকে ভালো হয়েছে, রঙ অনেকটাই নিখুঁত, সম্পূর্ণ এইচডি কন্টেন্টের ছবি ও শব্দ আগের থেকে ভালো। তবে ৪কে ও ডলবি ভিশন দেখা ও শোনার সময় কিন্তু কোনো পার্থক্য পাওয়া যায়নি তেমন, আগের মতোই আছে। 

পরিশেষে এটাই বলার যে যখন লঞ্চ হয়েছিল তার থেকে ওয়ানপ্লাস কিউ১ প্রো টিভির মান অনেকটাই উন্নত।  ডলবি ভিশন, ৪০ ডবল্যু সাউন্ড আউটপুট, অ্যান্ড্রয়েড টিভির যা যা সাপোর্ট থাকে সেসবের উপস্থিতি, কিউএলইডি স্ক্রিন, ডলবি অ্যাট্মস এবং সুন্দর ডিজাইন ওয়ানপ্লাস টিভির নাম বাড়িয়ে দিয়েছে। তবে দাম অবশ্যই কিছুটা বেশি।  আর ভিউ সিনেমা টিভি আসার পর থেকে তুলনামূলকভাবে দামের নিরিখে ভিউ সিনেমা টিভি অবশ্যই ভ্যাল্যু ফর মানি।  সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমের মধ্যে।  ওয়ানপ্লাস টিভি কিউ ওয়ানের সঙ্গে জমে উঠবে লড়াই ভিউ সিনেমা টিভির।