এয়ারকন্ডিশনারের উপর মানুষ দিনদিন অভ্যস্ত হয়ে পড়ছে। অফিসে টানা সেন্ট্রাল এসি-তে থাকতে থাকতে বাড়িতে ফিরে পাখার হাওয়া একদমই পছন্দ নয় অনেকের। তাই এখন প্রায় ঘরে ঘরেই এয়ারকন্ডিশনারের প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। কিন্তু এই এয়ারকন্ডিশনারের প্রতি অতিরিক্ত নির্ভরশীলতা আমাদের অনেক ক্ষতি করেছে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক, এয়ারকন্ডিশনার ব্যবহারে কিকি ঝুঁকি রয়েছে।

আরও পড়ুন, লাভই বলুন বা গ্রাহকসংখ্যা, সবাইকে ছাপিয়ে এখন একনম্বরে 'রিলায়েন্স জিও'

 বেশি সময় এয়ারকন্ডিশন পরিবেশে থাকলে, আমাদের ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়। যদি কেউ শুষ্ক ত্বকে ময়শ্চরাইজার  না ব্য়বহার করেন, তাহলে শুষ্ক ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। আপনি যদি দিনের বেশিরভাগ সময় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে থাকেন তাহলে বিভিন্ন শ্বাসতন্ত্রের সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বহুগুণ বেড়ে যায়। এয়ারকন্ডিশনার শ্বাসতন্ত্রের বিভিন্ন সংক্রমণকে বাড়িয়ে দিতে পারে। 

আরও পড়ুন, গর্ভাবস্থায় মর্নিং সিকনেসের শিকার, সমস্যা সমাধানে রইল কিছু সহজ টিপস
 
এয়ারকন্ডিশনার চোখের সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে। যেমন, কনজাংটিভাইটিস  এবং ব্লেফারাইটিস। এ ছাড়া যারা চোখে লেন্স ব্যবহার করেন, তারাও সমস্যায় ভূগতে পারেন।এ ছাড়াও এয়ারকন্ডিশনার বেশ কিছু রোগের প্রকোপকে বাড়িয়ে দেয়। যেমন, ব্লাড প্রেসার, আর্থাইটিস, বিভিন্ন ধরণের স্নায়ুর সমস্যা ইত্যাদি। এ ছাড়া অনেকের অ্যালার্জির সমস্যাও মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে।গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যে সব মানুষ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে বেশি সময় থাকেন, তারা মাথা ব্যথা ও অবসাদে বেশি ভোগেন। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘর ঠাণ্ডার সমস্যা বহুগুণে বাড়িয়ে দিতে পারে।