রাগ এমনই এক জিনিস, যা সুস্থ স্বাভাবিক মানুষকে বীভৎস করে তোলে। স্বাভাবিক অবস্থার মানুষটির সঙ্গে রেগে যাওয়া মানুষটিকে মেলানো যায় না। আর সবচেয়ে বড় বিষয়, যে রাগে ক্ষতি তারই হয়। 

রাগের মাথায় আপনি হয়তো এমন কিছু কথা বলে ফেললেন যা আপনি আদৌ নিজেই মনে করেন না। অথবা এমন কিছু কাজ করে ফেললেন, যা মেরামত করা অসম্ভব। অতিরিক্ত রাগে মানুষের বুদ্ধি লোপ পায়। শুধু রাগের জন্যই ভেঙে যায় অনেক সম্পর্ক। কাজের জায়গাতেও রাগ ভয়ানক ছাপ ফেলতে পারে। রাগ আত্নহননের থেকে কম খারাপ নয়। তাই রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে কী কী করবেন, তা মাথায় রাখুন। জেনে নিন রাগ থেকে নিজেকে বাঁচাতে কী করবেন, কী করবেন না- 

১) ভেবে কথা বলুন, বলে ভাববেন না। আমরা রাগের মাথায় এমন কিছু কথা বলে ফেলি যা আদৌ আমরা বলতে চাই না। কিন্তু রাগের উত্তেজনায় আমরা এমন কিছু বলে ফেল, যার জন্য পরে অনুশোচনায় ভুগতে হয়। 

২) প্রত্য়েকের রাগ হওয়ার কিছু কারণ থাকে। কিন্তু সেই কারণ ব্যক্ত করার জন্য় সঠিক সময়ের অপেক্ষা করুন। রাগের মাথায় অধৈর্য হয়ে কিছু বলে অন্যদিকের মানুষকে দুঃখ দেবেন না। মাথা ঠান্ডা হলে আলোচনা করুন। 

৩) রাগের সময়ে শরীরচর্চা করুন। এতে রাগ অনেকটাই কমে। রেগে যাওয়া যদি আপনার অভ্যেস হয়, ঘরে পাঞ্চিং ব্যাগ রাখুন। 

৪) সারাদিন কাজের চাপে স্ট্রেস জমতে থাকে। এটা হতে দেবেন না। এতে সহজে রেগে যাওয়ার প্রবণতা হয়। রোজ নিয়ম করে নিজের জন্য ১৫ মিনিট রাখুন। এই ১৫ মিনিট নিজের সবচেয়ে ভাল লাগার কাজটা করুন। 

৫) যে কারণেই মাথা গরম হোক, রাগের মুহূর্তে সেই কারণ  নিয়ে ভাববেন না। বরং সেই সময়ে ভাবুন কীভাবে নিজের রাগ কমাবেন। রাগের সময়ে বুদ্ধি লোপ পেতে দেবেন না। 

৬) রোজ নিয়ম করে মেডিটেশন করুন। মাথা যত অস্থির হবে, তত রাগ হওয়ার প্রবণতা বাড়বে। নিজের ধৈর্য ও গ্রহণ করার ক্ষমতা বাড়াতে মেডিটেশন  করুন। 

৭) অনেকেই প্রিয়জনদের উপরে নিজেদের রাগ বের করেন। পরে অবশ্য নিজেরাই তা নিয়ে আক্ষেপ করেন। এই অভ্যাস বাদ দিন। রেগে গিয়ে কারও সঙ্গে কথা বলবেন  না। নিজের রাগের সঙ্গে নিজেই বোঝাপড়া করুন। এতে সম্পর্ক নষ্ট হবে না। 

৮) রাগের সময়ে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক কিছু লিখে ফেলেন। ফোন করে মন্দ কথা শোনান। এক্ষেত্রে অবশ্যই মোবাইল ফোন থেকে দূরে থাকুন রাগের সময়ে। 

৯) রাগের সময়ে মনে হয় একমাত্র আপনি নিজেই ঠিক। বাকি সবাই ভুল। এক্ষেত্রে অবশ্যই আত্মসমালোচনা করুন। নিজের ভুলগুলো মনে করুন। দরকার পড়লে সেই সময়ে লিখে রাখুন। 

১০) সর্বোপরি রাগ সবার হয়। কিন্তু সেই রাগ যেন আপনার মাথায় চেপে না বসে সে দিকে খেয়াল রাখুন।