শীত আসতে না আসতেই ব্যথা ব্যথা অনুভব শুরু হচ্ছে। বিশেষত রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যথাটা যেন ক্রমশ বাড়ছে। হাঁটু বা গাটের ব্যথা র সমস্যা নিয়ে জেরবার হয়ে পড়ছেন। অনেকেরই সারা বছর এই ব্যথা কমবেশি হয়ে থাকে। কিন্তু শীতকাল আসা মাত্রই ব্যথাটা যেন দ্বিগুন হয়ে যায়। আর তখনই  পেইন কিলারের উপর প্রত্যেকেই যেন আসক্ত হয়ে পড়ি। কিন্তু বেশি পেইন কিলার খাওয়া শরীরের জন্য যথেষ্ঠ ক্ষতিকর। তাই ওষুধ ভুলে বাড়ির টোটকাতেই ভরসা রাখুন। জেনে নিন জয়েন্ট পেন সারানোর কয়েকটি অব্যর্থ  উপায়।

আরও পড়ুন-শীতের সকালে কীভাবে সহজেই ঘুম থেকে ওঠা যাবে, জেনে নিন...

ঠান্ডা-গরম জলের সেঁক

ঠান্ডা -গরম জল দিয়ে সেঁক দিলে যে কোনও ব্যথা নিমেষেই কমে যায় এই কথা আমরা প্রত্যেকেই জানি। ব্যথার জায়গায় একবার হট ওয়াটার ব্যাগ দিয়ে সেঁক দিন আবার ৫ মিনিট পর সেই জায়গায় বরফ দিন।  প্রায় ৩০ মিনিট ধরে  এই ভাবে সেঁক দিলে অনায়াসেই গাঁটের ব্যথা  কমে যাবে।

মেথির জল

দ্রুত ব্যথা কমানোর সহজ উপায় হল মেথি। শুধু রান্নাতেই নয় মেথির অনেক গুনাগুণ রয়েছে। যারা ব্যথায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগছেন তারা  নিয়মিত মেথি ভেজানো জল খান। একটি গ্লাসে সারা রাত এক চামচ মেথি ভিজিয়ে দিন। পরের দিন সকালবেলা ওই মেথি ভেজানো জলটা খান। এতে গাটের ব্যথা দ্রুত কমে যাবে।

আরও পড়ুন-বিয়ের আগে কী কী মেডিকেল টেস্ট জরুরি, জানুন এখনই...

নুন জলের সেঁক

সৈন্ধব নুন যে কোনও ব্যথাতেই খুবই কার্যকরী। ছোট এক কাপ সৈন্ধব নুন জলের মধ্যে গুলিয়ে নিন। এবার সেটি ফুটিয়ে নিয়ে ব্যথার জায়গায় ৩০ মিনিট ধরে সেঁক দিন। এতেও কিন্তু দ্রুত ব্যথা সেরে যাবে।

হলুদ-আদার মিশ্রণ

২ কাপ জলের সঙ্গে কিছুটা হলুদ ও আদা ভাল করে ফুটিয়ে নিন। তারপর সেই মিশ্রণটি যখন হাফ কাপ হয়ে যাবে তখন এর মধ্যে ১ চামচ মধু মিশিয়ে নিন। দিনে দুবার এটি খেতে পারলে আর কিন্তু পেইন কিলার খেতে হবে না। 

 

লঙ্কাগুঁড়ো এবং নারকেল তেলের মিশ্রণ

অনেকেই ভাবছেন ব্যথা সারাতে লঙ্কাগুঁড়ো আবার কী কাজে লাগে। কিন্তু লঙ্কাগুড়ো গাঁটের ব্যথা খুবই উপকারী। চিকিৎসকদের মতে, গাঁটের ব্যথা কমাতে ক্যাপসাইসিন খুবই কার্যকরী উপাদান। আর লাল লঙ্কার গুঁড়োতে প্রচুর পরিমাণে ক্যাপসাইসিন থাকে। নারকেল তেলের সঙ্গে লঙ্কার গুঁড়ো মিশিয়ে অন্তত আধ ঘন্টা মালিশ করুন। তারপর উষ্ণ গরম জল দিয়ে জায়গাটা ভাল করে ধুয়ে নিন। দেখবেন অনেকটা আরাম লাগছে।

পিপারমিন্ট এবং ইউক্যালিপটাস তেলের মিশ্রণ

ব্যথা সারানোর ক্ষেত্রে পিপারমিন্ট এবং ইউক্যালিপটাস তেলের মিশ্রণ অত্যন্ত কার্যকরী। নারকেল তেল, অলিভ অয়েলের সঙ্গে ৫-৬  ফোটা পিপারমিন্ট এবং ইউক্যালিপটাস তেলের মিশ্রণ ভাল করে মিশিয়ে নিয়ে ব্যথার জায়গায় মালিশ করুন। দিনে দুবার এই তেল মালিশ করুন দেখবেন ভাল ফল পাবেন।