ভারতে আনুষ্ঠানিক ভাবে  আত্মপ্রকাশ করেছে টাটা মোটরসের প্রিমিয়াম গাড়ি অল্ট্রোজ। দাম শুরু হচ্ছে ৫.২৯ লাখ টাকা থেকে। ৯.২৯ লাখের মধ্যে এই গাড়ির বিভিন্ন ধরণ পেয়ে যাবেন ক্রেতারা। মারুতি সুজুকির ব্যালেনো মডেলের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে টাটা অল্ট্রোজ আসছে বাজারে, তবে তাকে ব্যালেনো ছাড়াও হুন্ডাই এলিট আই২০, হন্ডা জ্যাজ, টয়োটা গ্লাঞ্জা এবং ফোকসভ্যাগন পোলো-এর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় পড়তে হবে।  ২০১৮ সালের অটো এক্সপোতে টাটা অল্ট্রোজের ঝলক দেখা গিয়েছিল প্রথমবার। ২২ জানুয়ারি তার আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ হয়েছে।
 অল্ট্রোজ হল টাটা কোম্পানির প্রথম গাড়ি যা বানানো হয়েছে আলফা মডুলার আর্কিটেকচারের আধারে, এই গাড়িকে দুই ধরণ অর্থাৎ হাইব্রিড ও বৈদ্যুতিক দুই ভার্সানেই রূপান্তরিত করা যাবে। গ্লোবাল এনসিএপি-এর রেটিং-এ টাটা অল্ট্রোজ পাঁচটি তারা পেয়েছে ইতিমধ্যেই। এর আগে এত ভালো রেটিং পেয়েছিল টাটা নেক্সন। আয়তন কেমন হবে অল্ট্রোজের? দৈর্ঘ্যে ৩,৯৯৯০ মিলিমিটার, প্রস্থে ১৭৫৫ প্রস্থে এবং উচ্চতা হবে ১৫২৩ মিলিমিটার। এই গাড়ির হুইলবেস থাকছে ২৫০১মি.মি এবং গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স ১৬৫ মিমি।  পেট্রল ভার্সান গাড়িটির ওজন হবে ১০৩৬ কেজি আর ডিজেল ভার্সানটির ওজন হবে ১১৫০ কেজি। 
ডিজাইনের নিরিখে এই গাড়ির বহিরঙ্গ হবে টাটা ইম্প্যাক্ট ২.০ ডিজাইনের আদলে, সঙ্গে লেড ডি আর এল থাকবে ফগ ল্যাম্পে, আর প্রোজেক্টর হেড লাইট যুক্ত থাকবে হানিকম্ব মেশ গ্রিলের সঙ্গে। আর এই ডিজাইনটা খুবই আকর্ষণীয়।  স্প্লিট লেড টেলল্যাম্পগুলো এবং রিয়ার দরজার হাতল্গুলো ওপরে কর্ণারের দিকে হওয়ায় সামনের ডিজাইনের সঙ্গে মানিয়ে গেছে পুরোপুরি।
গাড়ির ভেতরের কেবিন খুবই খোলামেলা, ৪ থেকে ৫ জন মানুষ অনায়াসে ধরে যাবে, লাগেজের জায়গাও যথেষ্ট পরিমাণে আছে। ফ্ল্যাট বটম স্টিয়ারিং হুইল থাকছে নিয়ন্ত্রণের জন্য, ৭ ইঞ্চি টিএফটি ডিসপ্লে খুব ভালো মানিয়েছে অন্দরসজ্জার সঙ্গে, ডিজিট্যাল ও অ্যানালগ কনফিগারেশন থাকছে টিএফটি ডিসপ্লে-তে। এছাড়াও বাড়তি গ্ল্যামার যোগ করেছে ৭ ইঞ্চি ফ্লোটিং টাচস্ক্রিন ইনফোটেনমেন্ট। এর সঙ্গে স্বয়ংক্রিয় আবহাওয়া নিয়ন্ত্রণ, গতি নিয়ন্ত্রণ, সামনের আলো, চারিপার্শ্বিক আলো, সামনের হাত রাখার ঢালু হাতল, জিনিসপত্র রাখার জায়গা থাকছে এবং হারমন অডিও সিস্টেমও আছে যাতে থাকছে ৪টি স্পিকার এবং দুটি টুইটার। 
 
বিএস ৬ নিয়ম মেনে দু ধরণের ইঞ্জিনের অপশন থাকছে অল্ট্রোজ-এ , ক্রেতারা প্রয়োজন অনুসারে নির্বাচন করতে হবে। ১.২ লিটার, ৩-সিলিন্ডার রিভোর্টন পেট্রোল মিল প্রদান করবে ৮৬বিএইচপি এবং ১১৩এনএম পিক টর্ক। আর ১.৫ লিটার ৪-সিলিন্ডার টার্বোচার্জড রিভোটর্ক ডিজেল থেকে পাওয়া যাবে ৯০বিএইহপি এবং ২০০এনএম পিক টর্ক। দুই ধরণের ইঞ্জিনেই থাকবে ৫-স্পিড ম্যানুয়াল গিয়ার বক্স, তবে স্বয়ংক্রিয় ইউনিটের আত্মপ্রকাশ ঘটবে কিছুদিন পরে।

নতুন অল্ট্রোজ পাওয়া যাবে ৫টি মডেলে- এক্সই, এক্সএম, এক্সটি, এক্সজেড এবং এক্সজেড(ও) , নীচে দামের তালিকা (এক্স শোরুম, ভারত) দেওয়া হল-


পেট্রোল

-- টাটা অল্ট্রোজ ১.২ লিটার রিভোর্টন এক্স ই -  ৫.২৯ লাখ টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.২ লিটার রিভোর্টন  এক্সএম - ৬.১৫ লাখ  টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.২ লিটার রিভোর্টন এক্সটি - ৬.৮৪ লাখ  টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.২ লিটার রিভোর্টন  এক্সজেড - ৭.৪৪ লাখ  টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.২ লিটার রিভোর্টন  এক্সজেড(ও)- ৭.৬৯ লাখ  টাকা


ডিজেল

-- টাটা অল্ট্রোজ ১.৫-লিটার রিভোটর্ক  এক্স ই - ৬.৯৯ লাখ টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.৫-লিটার রিভোটর্ক  এক্সএম - ৭.৭৫ লাখ টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.৫-লিটার রিভোটর্ক  এক্সটি-  ৮.৪৪ লাখ টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজz ১.৫-লিটার রিভোটর্ক  এক্সজেড -  ৯.০৪ লাখ টাকা
-- টাটা অল্ট্রোজ ১.৫-লিটার রিভোটর্ক  এক্সজেড(ও) - ৯.২৯ লাখ টাকা

কাস্টোমাইজড ভার্সান ও পাওয়া যাবে নতুন অল্ট্রোজ-এ, এই প্যাকের জন্য যে বাড়তি টাকা লাগবে -

 টাটা অল্ট্রোজ রিদিম- ২৫,০০০টাকা (এক্স ই) এবং ৩৯,০০০ টাকা(এক্সএম )
টাটা অল্ট্রোজ স্টাইল- ৩৪,০০০ টাকা
টাটা অল্ট্রোজ লাক্স- ৩৯,০০০ টাকা
টাটা অল্ট্রোজ আরবান- ৩০,০০০ টাকা।