তবে এত দাম দিয়ে কষ্টের উপার্জন দিয়ে কিছু কেনার সময়ে কিছু বিষয় আগে থেকে জেনে নেওয়া উচিত। তাই  জেনে নিন সোনা কেনার সময়ে কতটা সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্য়মের কাছে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, কী কী সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। 

১) সোনা কতটা খাঁটি সেটা দেখে নেওয়া প্রয়োজন। সোনা কতটা খাঁটি সেটা ঠিক করে ব্য়ুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্য়ান্ডার্ডস। প্রত্য়েক সোনার গয়নার একটি করে হলমার্ক নম্বর থাকে। এছাড়া থাকে বিএসআই স্ট্য়াম্প। এর মাধ্য়মে জানা যায় স্বর্ণকারের পরিচয়, স্থান, হলমার্কের সাল ইত্য়াদি তথ্য়। তাই কেনার সময়ে এইগুলি দেখে নেওয়া প্রয়োজন। 

২) অক্ষয় তৃতীয়া উপলক্ষে প্রত্য়েক দোকানেই চলে ডিসকাউন্ট। মজুরির উপরে বিশেষ ছাড়ের কথা বলা থাকে সব দোকানেই। সেক্ষেত্রে বিশদে জেনে নেওয়া প্রয়োজন কতটা ছাড় রয়েছে সোনার মধ্য়ে। 

৩) একই রকম সোনার গয়না বিভিন্ন দোকানে বিভিন্ন দামে বিক্রি হয়। সেক্ষেত্রে দেখে নেওয়া প্রয়োজন কেন দাম আলাদা। দুটি কারণে সোনার দামে রকমফের হয়। প্রথমত সোনার কোয়ালিটি এবং দ্বিতীয় সোনার সেই গয়নার মজুরি। 

৪)  সোনা দিয়ে ভাল বিনিয়োগ  হয় এটা অনেকেই মনে করেন। কিন্তু সেই সোনা কেমন, তা-র উপরেই নির্ভর করে সেই সোনা দিয়ে বিনিয়োগ করা যাবে কি না। 

৫) সোনার গয়নার থেকে সোনার কয়েন বা বিস্কুট কিনুন। সোনার গয়নার থেকে এইগুলি বিনিয়োগ করার জন্য় বেশি উপযুক্ত। 

৬) সোনা শুধু সাজের জন্য় কেনা হয় না। এর মূল্য় যত দিন যায় বাড়তে থাকে। ফলে বিনিয়োগ করলে লাভবান হওয়া যায়। কিন্তু পাথর খচিত বা মুক্তো দেওয়া সোনার গয়নার মূল্য় তুলনামূলক কম হয়। এই ধরনের সোনার গয়নার দাম পরে মনের মতো পাওয়া যায় না। তাই চেষ্টা করুন নিরেট সোনার গয়না কেনার।