সদ্যই শেষ হয়েছে পুজো। আর পুজোর মধ্যে শরীরচর্চার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। শরীরের কথা ভেবে পুজোর সময় খাওয়া-দাওয়া বন্ধ এটা আবার হয় নাকি। তবে পুজোর আগে রোগা হওয়ার জন্য অনেক কসরত হয়েছে। কেউ জিম তো কেউ যোগা, যেভাবেই হোক না কেন নিজেকে স্লিম রাখতেই হবে। তাদের মধ্যে কেউ হয়েতো পেরেছে আবার কেউ হয়তো পারেনি। আবার শুরু হবে শরীরচর্চার প্রস্তুতি। 

আরও পড়ুন- এই দেশে মুখ পুড়িয়ে যত্ন নেওয়া হয় ত্বকের, দূর করা হয় বলিরেখা ...

এবারের শরীরচর্চাটা একটু অন্যরকম ভাবে শুরু করুন । তার জন্য প্রথাগত ব্যায়াম করতে আর লাগবে না।  সঠিক মতো ডায়েট চার্ট মানলেই ওজন কমবে তড়তড়িয়ে, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কমবে বাড়তি ফ্যাট।  একমাসের মধ্যেই  শরীরের ওজন কমিয়ে ফিট রাখবে এই খাদ্যাভাস।  বেশি পরিমাণ  খাবার খেতে হবে কিন্তু নিয়ম মেনে। নিয়ম ভঙ্গ করলে কিন্তু হবে না। রোগা হওয়ার জন্য এ এক ভিন্ন ডায়েট।  অন্যান্য ডায়েটগুলিতে কার্বস প্রায়ই থাকেই না, এবং ফ্যাট জাতীয় খাবারের পরিমাণও খুব কম থাকে।  এই ডায়েটের ক্ষেত্রে বিষয়টি পুরো উল্টো। এতে কার্বহাইড্রেট কম খেতে হয় এবং ফ্যাট খেতে হয় বেশি।

আরও পড়ুন-মিউজিক থেরাপির মাধ্য়মে কীভাবে মন হালকা রাখবেন, জেনে নিন...

এবার ভাবছেন তো ফ্যাট খেলে কীভাবে মেদ ঝরবে। এখানেই রয়েছে আসল ফান্ডা। দিনের প্রতিটি খাবারে কার্বোহাইড্রেট কম এবং উপকারী ফ্যাট বেশি পরিমাণে রাখতে হবে। এতে যেমন ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে,তেমনি ভুড়িও কমবে। মোট ক্যালোরির ৩০ শতাংশ যেন ফ্যাট থেকে আসে সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। 

ডায়েট চার্ট
প্রসেসড ফুড, রেড মিড, ভাজা মিষ্টি এই সব ভুলে চিকেন, মাছ, ডিম,সব্জি, বাদাম, ডালজাতীয় খাবার. পিনাট বাটার, অলিভ অয়েল, ডার্ক চকোলেট, ব্রাউন রাইস ইত্যাদি খেতে হবে।

চার ঘন্টার বেশি খালি পেটে থাকবেন না।

দিনে কম করে দুই লিটার জল খান। আরও ভাল ফল পেতে চাইলে আদা, পুদিনা, শশা, লেবু মিশিয়ে একটা বোতলে ভরে রেখে দিন কমপক্ষে ১০ ঘন্টা। তারপর সারাদিন এটা খেতে পারেন।

বেশি পরিমাণে স্যালাড খান। স্যালাডে ড্রেসিং হিসেবে মেশান অলিভ অয়েল।

পাউরুটির মধ্যে মাখনের বদলে পিনাট বাটার অথবা অলিভ অয়েল লাগিয়ে খান।

সেদ্ধ সব্জির পুষ্টিগুণ রান্না করা সব্জির চেয়ে অনেক বেশি। বেশি পরিমাণে সেদ্ধ সব্জি খান। চাইলে সেই সব্জির মধ্যে কয়েকটা আমন্ড ও সামান্য অলিভ অয়েল ছড়িয়ে দিয়ে খেতে পারেন।

মেদ ঝরাতে দই-এর অসাধারণ ভূমিকা রয়েছে। এবার সেই দইয়ের মধ্যে চকোলেট চিপস মিশিয়ে খান।

রাতে ঘুমোতে যাবার আগে ডার্ক চকোলেট খান এক টুকরো করে।