রূপচর্চার এমন অভিনব পদ্ধতি শোনা যায়নি এর আগে। সৌন্দর্য ধরে রাখতে অনেকেই টাকা খরচ করে বিভিন্ন রকম থেরাপি বা ট্রিটমেন্ট করান। তবে ত্বকের তারুণ্য বজায় রাখতে শেষমেশ মুখে আগুন দিয়ে রূপচর্চা সত্যিই অভিনব। রূপচর্চার এই পদ্ধতির নাম ফায়ার থেরাপি। যা বর্তমানে অত্যন্ত জনপ্রিয় ভিয়েতনামে। সেখানকার হো চি মিন শহরের প্রায় বেশিরভাগ পার্লারেই চলছে এই অভিনব পদ্ধতিতে রূপচর্চা। সেখানকার বিউটি থেরাপিস্টরা মনে করেন, এই থেরাপি শুধু বিউটি ট্রিটমেন্ট নয় এটি একটি চিকিৎসা পদ্ধতিও। এই থেরাপির ফলে যে শুধু সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা যায় তা নয়, বহু শারীরিক সমস্যাও দূর করা যায় এই থেরাপির সাহায্যেই। 

আরও পড়ুন- ওজন ঝরাতে ব্যবহার করুন কফি, রয়েছে আরও অনেক উপকারীতা

জানা গিয়েছে, এই থেরাপিতে সরাসরি মুখে আগুন দেওয়া হয় না, এর জন্য মুখের উপর অ্যালকোহলে ভেজানো পাতলা একটি দিয়ে দেওয়া হয়। আগুন লাগানো হয় সেই তোয়ালেটিতে। ত্বকের উপর নির্ভর করে সময় নির্ধারণ করা হয়। তবে এক মিনিটের মধ্যেই এর উপর একটি ভারী তোয়ালে চাপা দিয়ে আগুন নিভিয়ে দেওয়া হয়। এই থেরাপির ফলে ত্বকের বলিরেখা থেকে শুরু করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি সবেতেই প্রভাব ফেলে। তাই ভিয়েতনামে ব্যপকভাবে সাড়া ফেলেছে এই থেরাপি।

আরও পড়ুন- অকালে চুল পেকে যাচ্ছে, শুধু বদল আনুন খাবার পাতে

আরও পড়ুন- মিউজিক থেরাপির মাধ্য়মে কীভাবে মন হালকা রাখবেন, জেনে নিন

তবে ‘আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটি’এই থেরাপির সম্বন্ধে জানিয়েছে, এই চিকিৎসা পদ্ধতি যে সম্পূর্ণভাবে উপকারী বা নিরাপদ তার কোনও সঠিক তথ্য বা প্রমাণ এখনও মেলেনি। তাই আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান এই থেরাপি সমর্থণ করে না। তবে চিকিৎসা বিজ্ঞান এই থেরাপি অস্বীকার করলেও ত্বকের জৌলুস বজায় রাখার জন্য কিন্তু ভিয়েতনামের মহিলারা ঝুঁকি নিয়েই করে চলেছেন এই রূপচর্চা। ধীরে ধীরে এই থেরাপি জনপ্রিয়তা লাভ করছে চায়নাতেও।