ত্বকের নানান সমস্যা দূর করতে আমাদের কত কী না করতে হয়। পার্লার, স্কিন ট্রিটমেন্ট, কসমেটিক্স কত কিছুর জন্য গাদা গাদা টাকা খরচ করি শুধুমাত্র জ্বেল্লাদার ত্বক পেতে। তবে জানলে অবাক হবেন কোনও রকম খরচ ছাড়াই আপনি পেতে পারেন উজ্জ্বল দীপ্তিময় ত্বক। শুধুমাত্র জল ব্যবহার করেই। ত্বকের যে কোনও সমস্যা সমাধানের জন্য বরফ জল অত্যন্ত উপযোগী। আপনি যদি পিম্পলস বা শুষ্ক ত্বকের সমস্যায় পড়ে থাকেন তবে বরফ জল আপনার জন্য একমাত্র অব্যর্থ টোটকা। তবে এটি ব্যবহার করার আগে কয়েকটি বিষয় জেনে রাখা প্রয়োজন।

আরও পড়ুন- ১০ মিনিটের মধ্যে প্রথম স্টেজের স্তন ক্যান্সার সনাক্ত করতে পারবে নতুন এই ডিভাইজ

আরও পড়ুন- অনর্গল ইংরেজিতে মহাত্মা গান্ধীর কথা, নেট দুনিয়ায় ভাইরাল 'দেশি দাদি'

 তৈলাক্ত ত্বক : নিয়মিত বরফ জল ব্যবহারের ফলে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকে এবং উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। আপনার যদি তৈলাক্ত ত্বক হয় তবে বার বার বরফ জলে ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়াও সান ট্যানের মত সমস্যার ক্ষেত্রে ত্বকে জ্বালা ও  কালচেভাব দূর করতেও এই জল খুব কার্যকরী।

সতেজ ত্বক : যদি ঘুম থেকে জেগে উঠার পর আপনার মুখ ফুলে থাকে। এমন পরিস্থিতিতে আপনাকে কোনও পার্টি বা অফিসে যেতে হয়। এই পরিস্থিতিতে, বরফের জল স্বল্প সময়ের মধ্যে মুখের ফোলা হ্রাস করবে এবং আপনি নতুন চেহারা পাবেন। বরফ জল দিয়ে মুখ ধুলে ত্বকের সতেজতা বৃদ্ধি পায় এমনকি ক্লান্তির ছাপ মুখে দেখা যায় তাও দূর হয়।

আরও পড়ুন- দেশের তৃতীয় মহিলা লেফটেন্যান্ট জেনারেল, মাতৃত্ব থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে মাধুরী কানিতকার

ওপেন পোরস: বরফের জল ত্বকের ওপেন পোরসগুলি সঙ্কুচিত করতে সহায়তা করে। এটি ত্বকের গভীর অবধি পরিষ্কার রাখে এবং পিম্পলস, রিঙ্কলস ইত্যাদি ত্বকের সমস্যাও দূর করে। এটি মুখের ত্বককে নরম করতেও সহায়তা করে। বরফ জলের পরিবর্তে আইস কিউবও ত্বককে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

 কীভাবে ব্যবহার করবেন: একটি পাত্রে জল নিয়ে তাতে বরফের কিউবের একটি ট্রে দিয়ে দিন। বরফটি সম্পূর্ণ গলে গিয়ে জলে দ্রবীভূত হওয়া অবধি অপেক্ষা করুন। সম্পূর্ণভাবে বরফ গলে গেলে তারপর মুখ ধোওয়ার জন্য এই জলটি ব্যবহার করুন। আপনি নিম বা পুদিনা পাতা সিদ্ধ করে একটি আইস কিউব ট্রেতে রাখতে পারেন। দিনে একবার বা দুবার এটি ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। এতে আরও ভালো ফল পাবেন। বরফ জল ত্বকের রক্ত সঞ্চালন ক্ষমতা বাড়িতে ত্বক উজ্জ্বল ও দীপ্তিময় করে তোলে।
 
তবে যদি এই ঠান্ডা জল ব্যবহারের সঙ্গে সঙ্গে মাথা ব্যাথা, মাথা ঘোরা বা অন্য কোনও শারীরিক সমস্যা হয়ে থাকে তবে এটি ব্যবহার না করাই ভালো। সে ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তবেই ত্বকের পরিচর্যা করুন।