অগ্রহায়ন মাস পড়ে গিয়েছে। আর অগ্রহায়ন মাস মাসেই বিয়ের ধুম। বাঙালির বিয়ে মানেই লাল টুকটুকে বেনারসী শাড়ি। বিয়ের রং মানেই লাল। লাল রং ছাড়া বাঙালির বিয়ে যেন অসম্পূর্ণ। আর রিসেপশনের শাড়ির রং যাই হোক না কেন, বিয়ের শাড়িতে লাল কিন্তু মাস্ট। আর যদি লাল রং নিতান্তই না হয় তাহলে লালের যে কোনও একটা শেডটা কিন্তু চাই ই চাই। কারণ লাল রঙের মধ্যে একটা আলাদা উজ্জ্বলতা আছে যেটা বিয়ের দিন কনেদের খুব সুন্দর মানায়।

আরও পড়ুন-চুলের যত্নে টি-ট্রি অয়েলের অসাধারণ কিছু ব্যবহার, জানুন এখনই...

বিয়েবাড়ি মানেই উজ্জ্বল রঙের পোশাক পরে সকলের মধ্যমণি হতে হবে এই ভাবনায় অধিকাংশের মাথায় ঘুরতে থাকে। এবং বেশিরভাগই লাল রঙের প্রতি ঝোঁকে। তখন কনের পাশাপাশি চারিদিকেই প্রায় লাল রঙের দেখায়। কিন্তু বর্তমানের হাল ফ্যাশনে এই লাল বেনারসীর বদলে অনেকটাই জায়গা করে নিয়েছে লেহেঙ্গা। এবং হবু কনেরাও ঝুকছে সেই লেহেঙ্গার দিকে। তবে লাল রঙের বদলে লাল-সাদার ট্রেন্ডই এখন বিয়েতে বেশি নজর কাড়ছে। বিয়ের দিন শাড়ি পরলেও রিসেপশনে লেহেঙ্গা কিন্তু অনেকেরই পছন্দ। জাকজমক কাজ, গাঢ় রং ছেড়ে এখন হালকা রং, সিম্পল মোটিফের কাজ করা শাড়ি বা লেহেঙ্গাকেই বেছে নিচ্ছেন হবু কনেরা। এবং সেই হালকা রঙের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে সাদা রং। সাদা- লালের জুটি বরাবরই হিট ফ্যাশনে। আর সেই কম্বিনেশনই এখন বাজিমাত করছে কনের ওয়্যারড্রোবে।

আরও পড়ুন-নখকুনির সমস্যায় ভুগছেন, ঘরোয়া টোটকায় মিলবে মুক্তি...

শুধু লেহেঙ্গায়ই নন, তার সঙ্গে মানানসই জুয়েলারিও পরতে হবে। এখন বিভিন্ন ধরনের কুন্দনের গয়না হাল ফ্যাশনে খুবই হিট। এছাড়া চোকার হার, ঝুমকো, হাতের চুড়ি সব কিছুই মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করেও নেওয়া যেতে পারে। যারা বিয়ের দিন ভাবছেন লেহেঙ্গা পরবেন তারা অনায়াসেই সোনার জিনি, দিয়েও সাজতে পারেন। তবে বিয়ের লেহেঙ্গাতে যেন সোনালি জড়ির কাজ থাকে তাহলে তা অনেক বেশি গর্জিয়াস হবে। বিয়ে হোক বা রিসেপশন লেহেঙ্গার সঙ্গে মানানসই সাঁজটা কিন্তু মাস্ট। যে যেরকম সাজতে ভালবাসেন সেই অনুযায়ী সেজে নেবেন। যদিও আরও একটি পজেটিভ পয়েন্ট রয়েছে এই লাল-সাদা লেহেঙ্গার। এমন একটি রঙের লেহেঙ্গা বাছতে হবে যেটা শুধু নিজের বিয়েতে নয়, অন্য কোনও অনুষ্ঠানেও অনায়াসে ,সেটি পরা যায়।